অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খালেদাকে রাখা হয়নি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে রাখা হয়নি। এবং তাকে অস্বাস্থ্যকর খাবারও দেওয়া হচ্ছে না। তাকে পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের নতুন ডে-কেয়ার সেন্টারে রাখা হয়েছে। তাকে কারাগারের অন্য জায়গায় স্থানান্তরে আপাতত কোনো পরিকল্পনা নেই বলেও জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। আগারগাঁওস্থ সদর দপ্তরে আজ বুধবার সকালে বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও কোস্টগার্ড বাহিনী দিবস-২০১৮ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এটা ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার ছিল। সবচেয়ে নিরাপদ কারাগার। এখানকার পরিবেশ মোটেও অস্বাস্থ্যকর নয়। যেখানে খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছে সেটা একটা নতুন বিল্ডিং, যা বাচ্চাদের ডে-কেয়ার সেন্টার ছিল। বিধি অনুযায়ী তাকে যত সুযোগ-সুবিধা দেওয়া দরকার সবই দেওয়া হচ্ছে। তাই এখান থেকে তাকে স্থানান্তরের চিন্তা সরকারের নেই। এসময় প্রশ্নপত্র ফাঁসের মূল হোতাদের ধরা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার চেষ্টা করছি, শিক্ষা মন্ত্রণালয়কেও সহায়তা করছি। আশাকরছি, মূল হোতারা অচিরেই ধরা পড়বে।

এর আগে কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে প্রায় অখাদ্য দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। গত শনিবার বিকেলে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন তিনি। সে সময় এ বিষয়ে প্রয়োজনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গেও দেখা করবেন বলে জানান ব্যারিস্টার মওদুদ।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গেল বৃহস্পতিবার বকশীবাজারের বিশেষ আদালত খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। এরপর থেকেই বিএনপি নেত্রীকে আদালতের পাশে পুরনো ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রথম তিনদিন পুরনো কারাগারের সিনিয়র জেল সুপারের পরিত্যক্ত কক্ষে সাধারণ কয়েদি হিসেবে রাখা হয়। পরে শনিবার রাতে তাকে মহিলা ওয়ার্ডে নিয়ে যাওয়া হয়।