আজও বৃষ্টির সাথে দমকা হাওয়া


রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় আজও বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি হতে পারে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। কোথাও কোথাও শিলাবৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

চলতি মাসের শুরুর দিকেই দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি শুরু হয়েছে। মাসের প্রথম সপ্তাহে একাধিক ঝড়ও হয়েছে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। কিছুক্ষণ রোদ থাকলেও আকাশ ঢেকে যাচ্ছে মেঘে। পরে শুরু হয় দমকা হাওয়া। বজ্রপাতের ঘটনাও ঘটছে। এরই মধ্যে বজ্রপাতে একাধিক মানুষ মারা গেছেন।

গতকাল সোমবার নেত্রকোনার পূর্বধলায় আবু ছিদ্দিক (৫২) নামের এক কৃষক বজ্রপাতে নিহত হন। রাজধানীতে গতকাল কয়েক দফা বৃষ্টিপাত হয়। বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে বিক্ষিপ্তভাবে কোথাও কোথাও শিলাবৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

গতকাল ঢাকায় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৮ থেকে ১২ কিলোমিটার। অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ যা ঘণ্টায় ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার। গতকাল ঢাকায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৫১ মিলিমিটার। সবচেয়ে বেশি ছিল সীতাকুণ্ডে; ৭২ মিলিমিটার।

গতকাল ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা ছিল যশোরে; ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সবচেয়ে কম তাপমাত্রা ছিল তেঁতুলিয়ায়;১৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়াবিদ মো. আবুল কালাম মল্লিক চলতি মাসের শুরুতে বার্তা সংস্থা বাসসকে বলেন, ‘এপ্রিলে আবহাওয়া বিরূপ থাকে এবং তাপমাত্রা অনেক বেড়ে যায়।’

তিনি আরো জানান, বৃষ্টিপাত ছাড়াও এ সময় সমুদ্রে দু-একটি নিম্নচাপের সৃষ্টি হতে পারে। এর মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এই মাসে দেশের উত্তর-মধ্যাঞ্চলের ওপর দিয়ে দাবদাহ বয়ে যেতে পারে। কোথাও কোথাও এই দাবদাহের কারণে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে উঠে যেতে পারে।