আমি সারা বিশ্বের এক নম্বর অর্থমন্ত্রী: মুস্তফা কামাল

‘সাইফুর রহমান চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ছিলেন। আমিও তাই। আমি সারা বিশ্বের এক নম্বর অর্থমন্ত্রী। পারসোনাল লেভেলে কথা বলবেন, এটা ঠিক নয়। আমিও অনেক কিছু বলতে পারি। সবার বিষয়েই আমি জানি। একমাত্র রফতানি বাণিজ্য নেগেটিভ। এছাড়া একটি খাতও নেই, যেখানে আমরা পিছিয়ে আছি। বিশ্বব্যাংক, এডিবি, জেপি মর্গান সবাই মনে করে, জিডিপি আট ভাগের কম হবে না।’ অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল গতকাল জাতীয় সংসদে এ কথা বলেন।

সংসদে গতকাল স্বায়ত্তশাসিত, আধা স্বায়ত্তশাসিত, সংবিধিবদ্ধ সরকারি কর্তৃপক্ষ, পাবলিক ননফিন্যান্সিয়াল করপোরেশনসহ স্বশাসিত সংস্থাগুলোর উদ্বৃত্ত অর্থ রাষ্ট্রের উন্নয়নমূলক কাজে লাগাতে আইন করার প্রস্তাব নিয়ে বিল উত্থাপন করা হলে এ নিয়ে তুমুল তর্ক-বিতর্ক হয়। এ বিতর্ক চলাকালে জাতীয় পার্টির এক এমপি অর্থমন্ত্রীকে ‘ব্যবসায়ী’ বলে অভিহিত করেন। এছাড়া বিএনপির এমপি রুমিন ফারহানা বলেন, অর্থমন্ত্রী অসাধারণ মেধাবী ছাত্র ছিলেন। সাধারণ অবস্থা থেকে ব্যবসায়ী হয়েছেন। উনি অর্থনীতি বোঝেন না, এটা পাগলেও বিশ্বাস করবে না। তাহলে সমস্যাটা কোথায়? উনার সদিচ্ছার অভাব। এত মেধাবী তিনি, কিন্তু শেয়ারবাজার, খেলাপি ঋণ নিয়ে কিছু করলেন না। কেন মেধাবী অর্থমন্ত্রী এদিকে নজর দিচ্ছেন না? উনি ধনী সমাজের জন্য অর্থমন্ত্রী হননি। কেন খেটে খাওয়া মানুষের দিকে উনার নজর নেই?

এ সময় অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০১০ সালের পর থেকে পুঁজিবাজার মোটামুটি স্থিতিশীল আছে। পুঁজিবাজারের আরো ভালো করা উচিত। যে জায়গায় থাকা উচিত, সেখানে নেই। এ মুহূর্তে কতজন ব্যাংকার, কর্মকর্তা জেলে আছে জানা দরকার। যারা অন্যায় করেছে বিচারে নিয়ে যাব।

প্রসঙ্গত, গত মাসে ২০২০ সালের জন্য আ হ ম মুস্তফা কামালকে বিশ্বের সেরা অর্থমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত করে যুক্তরাজ্যভিত্তিক স্বনামধন্য সংবাদমাধ্যম ফিন্যান্সিয়াল টাইমসের মাসিক ম্যাগাজিন ‘দ্য ব্যাংকার’। বাংলাদেশের প্রথম অর্থমন্ত্রী হিসেবে এ সম্মানজনক অর্জনে ভূষিত হয়েছেন আ হ ম মুস্তফা কামাল। এর আগে ইন্দোনেশিয়ার অর্থমন্ত্রী ২০১৯ সালে এবং ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী প্রয়াত অরুণ জেটলি ২০১৮ সালে বিশ্বের সেরা অর্থমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছিলেন।