উল্কি আঁকা মমির সন্ধান


মিশরে ৩০টি ট্যাটু সম্বলিত একটি মমির সন্ধান পাওয়া গেছে। মমিটি একজন তরুণীর।

দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় শহরের দেইর এল-মদিনা নামের এক গ্রামে এটি পাওয়া গেছে বলে সেদেশের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

ফ্রেঞ্চ ইনস্টিটিউট অব ওরিয়েন্টাল স্টাডিজ (আইএফএও)-এর ফরাসি প্রত্নতাত্ত্বিক মিশনটি মমিটির সন্ধান পায় ২০১৪ সালে। এরপর ইনফ্রারেড প্রযুক্তি ব্যবহার করে মমি ও এর ট্যাটুগুলির ওপর বৈজ্ঞানিক গবেষণা চালানো হয়।

মিশরের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের সুপ্রিম কাউন্সিলের জেনারেল সেক্রেটারি ড. মোস্তফা ওয়াজিরি গবেষণার বরাত দিয়ে জানিয়েছেন, সম্ভবত ১৩০০ থেকে ১০৭০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দের কোনো এক সময় ওই তরুণী বেঁচে ছিলেন এবং মারা যান ২৫ থেকে ৩৪ বছরের মধ্যে।

মমিটির ৩০টি আলাদা ট্যাটু শরীরের বিভিন্ন অংশে গলা, পিঠ, কাঁধ এবং বাহুতে খচিত। উল্কিগুলো বাছুর, পদ্ম ফুল, গবাদি পশু এবং প্রতিরক্ষা দেবতার প্রতীকী চোখ যা প্রকাশ করে। এটি এমন এক তরুণীর যিনি জীবদ্দশায় গুরুত্বপূর্ণ ছিলেন।

যদিও ওই তরুণীর নাম, পদবি চিহ্নিত করা যায়নি। তবে ওয়াজিরি বলেন, ওই নারী সম্ভবত একজন শীর্ষ কর্মকর্তা বা অভিজাত ছিলেন।

ড. ওয়াজিরি আরো বলেন, অন্যান্য খোলা মমিগুলো ছোট লাইন বা বিন্দু সম্বলিত সাধারণ উল্কির সঙ্গে পাওয়া যায়, কিন্তু ওই তরুণীর মমিকৃত শরীরটি প্রথম যেখানে উল্কিগুলো পরিপূর্ণ পাওয়া গেছে।

মমিটিকে এখন তিন হাজার বছর আগে সমাহিত করা হয়।