এবার স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ স্ত্রীর মৃত্যু

FIRE. Wood Fire. Bonfire on a beach in a fire pit. Hot Burning flames of fire.


লালমনিরহাট পাটগ্রাম পৌরসভার নিউ পূর্বপাড়ায় স্বামী দেওয়া আগুনে হাসপাতালে দগ্ধ অবস্থায় ৫দিন পর রোজিনা বেগম (২০) নামের ওই গৃহবধু মারা গেছে। শনিবার সকাল ১১টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। ওই গৃহবধূর বাবার বাড়ী পাশ্ববর্তী নীলফামারী জেলার জলঢাকা এলাকায়।। গত সোমবার সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত (৮তারিখ) সোমবার সন্ধ্যায় বাড়িতে আত্মীয় আসবে বলে স্বামীকে খবর দেয় রোজিনা। ওই খবরে ক্ষুব্ধ হয়ে স্বামী আব্দুল্লাহ বাড়ি ফিরেই স্ত্রী রোজিনার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়। এতে করে রোজিনার গলা থেকে পা পর্যন্ত পুড়ে যায়।

এলাকার লোকজন ছুটে এসে আহত ওই নারীকে উদ্ধার করে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ স্বামী আব্দুল্লাহকে(২৬) আটক করে থানায় নিয়ে আসে। আটক আব্দুল্লাহ পাটগ্রাম পৌরসভার নিউ পূর্বপাড়া এলাকার মোমিন মিয়ার পুত্র।

পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে দুই দিন চিকিৎসার পর গত বৃহস্পতিবার উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে। গতকাল শনিবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরন করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাটগ্রাম থানার ওসি মনসুর আলী সরকার মুঠোফোনে সত্যতা নিশ্চত করে বলেন, ‘আগুনে দগ্ধ ওই গৃহবধু সকাল ১১টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মারা গেছে।’