করোনায় প্রথম কুকুরের মৃত্যু

নিউ ইয়র্কের প্রথম কুকুর যার শরীরে মিলেছিল করোনার জীবাণু, তার মৃত্যু হয়েছে৷ সংবাদমাধ্যম ন্যাশনল জিওগ্রাফিক জানাচ্ছে যে, এই কুকুরটির নাম বাডি এবং এপ্রিল মাস থেকেই সে অসুস্থ ছিল।

একই সময় থেকে তার মালিক, রবার্ট, করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে তিনি ধীরেধীরে সেরে উঠছিলেন৷ মালিক করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই বাডির শ্বাসকষ্ট শুরু হয়৷ তারপর চিকিৎসক দেখানোর পর তার শরীরে করোনার জীবাণু মেলে।

সেই থেকেই তার শরীর খারাপ হতে থাকে৷ এবং নিঃশ্বাস নিতে খুবই সমস্যা হয়। নাকেও ঘন সর্দি জমতে থাকে৷ এরপরই রক্ত বমি শুরু হয় বাডির৷ সঙ্গে প্রস্রাবেও রক্ত দেখা যায়৷ হাঁটার সমস্যা শুরু হয়৷ এরপর তার মৃত্যু হয়।

যদিও করোনায় তার মৃত্যু হয়েছে কিনা, সেটা এখনও স্পষ্ট নয়৷ তার রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট দেখে মনে করা হচ্ছে যে লিম্ফোমা (এক ধরণের ক্যান্সার) বাসা বেঁধেছিল শরীরে। এমনই জানিয়েছেন পশু চিকিৎসক।

তার শরীরের ময়নাতদন্ত করার কথা হলেও, তার আগেই তাকে দাহ করা হয়েছিল৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ইতিমধ্যেই ১২টি কুকুর, ১০টি বিড়াল, ১টি বাঘ ও ১টি সিংহ করোনায় আক্রান্ত৷ তবে পশুর শরীর থেকে করোনা ছড়ায় কিনা তার কোনও প্রমাণ এখনও মেলেনি৷ কিন্তু পশুদের সংক্রমণের খবরে মনে হচ্ছে যে মানুষের শরীর থেকে পশুরা আক্রান্ত হচ্ছে।