করোনা থেকে বাঁচতে বিশেষ পানীয় খাচ্ছে আফ্রিকানরা, ডাব্লিউএইচও’র সতর্কতা


করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এক ধরনের ভেষজ পানীয় তৈরির দাবি করেছে আফ্রিকার দেশ মাদাগাস্কার। বিশ্ব স্বাস্থ্য করেছে, ওই পানীয় পান করার ব্যাপারে এরই মধ্যে সতর্ক করে দিয়েছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এপ্রিলে মাদাগাস্কারের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রি রাজোলিনা সাংবাদিকদের জানান, ওই পানীয় পান করলে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। দু’জন করোনা রোগী ওই পানীয় পান করে সুস্থ হয়েছেন।

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ওই পানীয় না খাওয়ার কথা জানায়। কারণ, ওই পানীয় করোনা প্রতিরোধে সক্ষম কিনা, তা বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণ হয়নি। সে কারণে তা পান করা থেকে সবাইকে বিরত থাকার কথা জানানো হয়।

ডাব্লিউএইচও বলছে, আর্টেমিশিয়া থেকে সংগৃহীত যৌগ উপাদানগুলো ম্যালেরিয়া সারাতে কার্যকর, সরাসরি এই গাছ ব্যবহার করা ঠিক নয়। সে ক্ষেত্রে কার্যকারিতা পরীক্ষা না করেই তথাকথিত কোনো ওষুধ গ্রহণ অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

তবে ডাব্লিউএইচও’র সতর্কতা উপেক্ষা করে আফ্রিকার দেশগুলোতে মাদাগাস্কারের দাবিকৃত পানীয় ওষুধ ব্যবহার শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে তানজানিয়া, সেন্ট্রাল আফ্রিকা, কঙ্গো, লাইবেরিয়া, গিনি-বিসাউ প্রভৃতি দেশে বিনামূল্যেই হাজার হাজার বোতল পানীয় পাঠিয়েছে মাদাগাস্কার।

মাদাগাস্কার সরকার জানিয়েছে, তারা পানীয়টির দাম দেশের মধ্যে নির্ধারণ করেছে ৪০ মার্কিন সেন্ট। শুধু নিজেরাই নয়, আফ্রিকার প্রতিবেশী দেশগুলোকেও তারা এই পানীয় সরবরাহ করবে।

এরই মধ্যে গিনি-বিসাউ অন্তত ১৬ হাজার বোতল পানীয় পেয়েছে। গত শুক্রবার তানজানিয়ায় পৌঁছেছে এই ভেষজ পানীয়।