কাশিয়ানীতে সহপাঠীর ছুরিকাঘাতে স্কুলছাত্র নিহত

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সহপাঠীর ছুরিকাঘাতে বরকত উল্লাহ প্রিন্স (১৩) নামের সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার রামদিয়া এস কে উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

রামদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. হাদি আব্দুল্লাহ জানান, সকালে প্রাইভেট পড়ার সময় কোচিং সেন্টারে সহপাঠী সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী শাহ আলমের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয় প্রিন্সের। পরে স্কুল থেকে প্রিন্সকে বাইরে ডেকে নিয়ে পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় শাহ আলম। এ সময় অন্য সহপাঠী ও শিক্ষকরা মারাত্মক আহতাবস্থায় প্রিন্সকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে। ঘাতক শাহ আলমকে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তবে হত্যার কারণ সম্পর্কে এখনও নিশ্চিতভাবে কিছু বলতে পারেনি পুলিশ। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত থানায় কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি।

নিহতের পিতা হানিফ মোল্লা জানান, আজ মঙ্গলবার সকালে আমার ছেলে প্রিন্সকে স্কুলে দিয়ে আসি।
এরপর জানতে পারি তার সহপাঠী শাহ আলম ছুরি দিয়ে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরে ওকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে। আমি আমার সন্তান হত্যার বিচার চাই। ”

গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক সঞ্জিব কুমার ধর বলেন, “নিহত স্কুল ছাত্রের পেটে ছুরির কোপ রয়েছে। মারাত্মক অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তবে চিকিৎসা শুরু করা হলেও সে মারা যায়। ”