ক্যাম্পাসে সন্ত্রাস বন্ধে বুয়েটে গণশপথ কর্মসূচি পালন


ক্যাম্পাসে সকল ধরনের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও সাম্প্রদায়িক শক্তিকে রুখে দেয়ার প্রতিজ্ঞায় বুধবার (১৬ অক্টোবর) গণশপথ কর্মসূচি পালন করেছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র ও শিক্ষকরা।

গণশপথের মধ্যেদিয়ে মাঠপর্যায়ের আন্দোলনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা। তবে অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কার না করা পর্যন্ত কোনো ক্লাস-পরীক্ষায় তারা অংশ নেবেন না। পরে উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পেলেই আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বুয়েট থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে।

দুপুরে বুয়েট মিলনায়তনে উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলামের উপস্থিতে এ গণশপথ অনুষ্ঠিত হয়। পূর্ব ঘোষণা অনুসারে বেলা সোয়া একটায় বুয়েট মিলনায়তনে এ গণশপথ অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে কর্মসূচিতে অংশ নিতে সকাল থেকে বুয়েট ক্যাম্পাসে জড়ো হতে থাকেন শিক্ষার্থীরা। পরিচয়পত্র দেখিয়েই শিক্ষার্থীদের মিলনায়তনে প্রবেশ করতে হয়।

এর আগে শিক্ষার্থীরা জানান, তাদের এ কর্মসূচিটি বাইরে হওয়ার কথা থাকলেও বৈরী আবহাওয়ার আশঙ্কায় সেটি পরে মিলনায়তনে করার সিদ্ধান্ত হয়। এ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মাঠের কর্মসূচির আজ ইতি টানবেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার অভিযোগপত্রে যাদের নাম আসবে, তাদের সবাইকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার না করা পর্যন্ত তারা কোনো ধরনের একাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নেবেন না।
গণশপথে অংশ নেয়ার মাধ্যমে আমাদের ক্যাম্পাস থেকে সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দাঁড়ানোর জন্য প্রতিজ্ঞা নেয়ার কথা জানান আন্দোলনরতরা।