গাজীপুরে তুলা ও ঝুটের ১৬টি গুদামে আগুন


গাজীপুরের কোনাবাড়ী এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে একটি তুলার গুদাম ও ১৫টি ঝুটের গুদামের মালামাল পুড়ে গেছে।

গতকাল শনিবার রাত ৯টার দিকে কোনাবাড়ী থানা এলাকার দেউলিয়াবাড়ী এলাকার ঝুটের গুদামে এবং রাত ১১টার দিকে জরুন এলাকার কেয়া স্পিনিং মিলের তুলার গুদামে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কালিয়াকৈর শাখার উপসহকারী পরিচালক মনোরঞ্জন সরকার জানান, রাত ৯টার দিকে কোনাবাড়ী থানার দেউলিয়াবাড়ী এলাকার একটি ঝুটের গুদামে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তেই আগুন পাশের আলমগীর, সোহেল, আয়নাল ও রতনসহ ১০ জন মালিকের ১৪টি গুদামে ছড়িয়ে পড়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করে। স্থানীয়রা আগুন নেভানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

খবর পেয়ে কালিয়াকৈর, জয়দেবপুর, সাভারের ইপিজেড ও ডিবিএল স্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। আগুনে ঝুটের ১৫টি গুদাম ও মালামাল পুড়ে গেছে এবং ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

তবে কী কারণে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, তা এখনো জানা যায়নি বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের এই কর্মকর্তা।

এদিকে তুলার গুদামে আগুন লাগার ব্যাপারে কোনাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদ হোসেন জানান, কোনাবাড়ী এলাকার কেয়া স্পিনিং মিলের একটি তুলার গুদামে গতকাল রাত ১১টার দিকে আগুন লাগে। এরপর আগুন টিনশেডের ওই গুদামে ছড়িয়ে পড়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করে। ঘটনার সময় ওই গুদামটি তালাবদ্ধ ছিল।

খবর পেয়ে জয়দেবপুর, সাভার ইপিজেড ও ডিবিএল স্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। সোয়া এক ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত সোয়া ১২টার দিকে আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে।

বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।