চুয়াডাঙ্গায় সড়কে গাছ ফেলে গণডাকাতি

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় সড়কে গাছ ফেলে গণডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার রাত ৮টার দিকে আলমডাঙ্গা উপজেলার বন্ডবিল-মাদারহুদা সড়কে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় ডাকাত সদস্যরা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে লুট করে প্রায় তিন লাখ টাকা। ডাকাত সদস্যদের অস্ত্রের আঘাতে আহত হয়েছে চার গরু ব্যবসায়ী।

স্থানীয়রা জানান, আলমডাঙ্গা উপজেলার নতিপোতা গ্রামের ৮-১০ গরু ব্যবসায়ী কুষ্টিয়ার বালুপাড়া গরুরহাটে গরু বিক্রি করে রাতে নিজ গ্রামে ফিরছিলেন।

রাত আনুমানিক ৮টার দিকে একটি লাটাহাম্বারযোগে গরু ব্যবসায়ীরা আলমডাঙ্গা উপজেলার বন্ডবিল-মাদারহুদা সড়কের কবরস্থানের কাছে পৌঁছালে ডাকাত দলের কবলে পড়েন তারা।

ডাকাতির কবলে পড়া ব্যবসায়ী আবুল হাশেম জানান, কবরস্থানের কাছাকাছি আমাদের গাড়ি পৌঁছালে সড়কে গাছ ফেলে আমাদের ব্যারিকেড দেয়া হয়।

এর পর ১০-১২ জনের মুখোশধারী ডাকাত সদস্য সশস্ত্র অবস্থায় আমাদের জিম্মি করে বেদম মারপিট শুরু করে।

এ সময় আমার কাছ থেকে ৯০ হাজার, তানজেদের কাছ থেকে এক লাখ ও তানসেলের কাছ থেকে এক লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

ঘটনার সময় ওই সড়ক দিয়ে যাওয়া বেশ কয়েকজন আলমসাধুর যাত্রীকেও জিম্মি করে তাদের কাছে থাকা নগদ টাকা ও মোবাইল লুট করে ডাকাত সদস্যরা। প্রায় আধাঘণ্টা ধরে ডাকাতি শেষে ডাকাত সদস্যরা নিবিঘ্নে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

পরে ডাকাতের কবলে পড়া ব্যবসায়ীদের চিৎকারে গ্রামবাসী তাদের উদ্ধার করে। এদের মধ্যে আহত চারজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে ডাকাতির খবর পেয়ে রাত ৯টার দিকে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের বেশ কয়েকটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছান। পরে ডাকাত সদস্যদের আটকে পুলিশ অভিযান চালালেও কাউকে আটক করতে পারেনি।

আলমডাঙ্গা থানার ওসি আশিকুর রহমান জানান, ডাকাত সদস্যদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে।