চোরাই গাড়িসহ আটক ৮ মাদক ব্যবসায়ী


সাতক্ষীরা সীমান্ত এলাকায় যশোরের বাসিন্দা সফিকুল (৫০) নামে র‌্যাবের এক সোর্সকে অপহরণ করার পর উদ্ধার করে মাদক চোরাকারবারী চক্রের এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব)। গ্রেপ্তার হওয়া মাদক চোরাকারবারীর দেওয়া তথ্য নিয়ে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদক চোরাচালন ওই চক্রের আট সদস্যকে ছয়টি চোরাই গাড়িসহ আটক করা হয়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে কারওয়ানবাজারের র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক (সিও) অতিরিক্ত ডিআইজি মো. কাইয়ুমুজ্জামান খান।

র‌্যাব-১০ অধিনায়ক বলেন, গত ১৫ এপ্রিল ঢাকায় আসার পথে কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাট থেকে সফিকুলকে অপহরণ করা হয়। মাদক চোরাকারবারীরা তাকে অপহরণ করে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে নিয়ে যায়। সফিকুলকে উদ্ধারে র‌্যাবের অভিযান টের পেয়ে তাকে খুলনা নিয়ে যায় এবং নিজেদের মাদক ও অস্ত্র দিয়ে রূপসা থানা পুলিশকে দিয়ে গ্রেফতার করানো হয়। পুলিশকে বিষয়টি জানালে সফিকুলকে উদ্ধারসহ ওই চক্রের এক সদস্যকে আটক করে পুলিশ।

চক্রের সদস্যরা ঢাকায় আসছে এমন খবর পেয়ে সোমবার রাতে শনির আখড়া থেকে দিলু মিয়া ও আব্দুল খালেককে একটি চোরাই গাড়িসহ আটক করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ঢাকা, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজার থেকে আরও ছয় সদস্যকে পাঁচটি চোরাই গাড়িসহ আটক করা হয়।

আটকদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১০ অধিনায়ক জানান, তারা বিভিন্ন জায়গা থেকে গাড়ি চুরি করে গাড়িগুলো মাদক চোরাচালানের কাজে ব্যবহৃত করতো। তাদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় মাদক, অপহরণ, গাড়ি চুরি, নারী ও শিশু নির্যাতনসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।