টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের পদত্যাগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর


মন্ত্রিসভার টেকনোক্র্যাট সদস্যদের পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ মঙ্গলবার দুপুরে গণভবনে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদের সভায় তিনি এই সিদ্ধান্ত দেন।

পরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘মন্ত্রিপরিষদের টেকনোক্র্যাট সদস্যদের পদত্যাগ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যরা স্বপদে বহাল থাকবেন।’

মন্ত্রিপরিষদের টেকনোক্র্যাট সদস্য হচ্ছেন তাঁরা, যাঁরা জাতীয় সংসদের সদস্য নন। বর্তমান মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী ছাড়া সদস্য রয়েছেন মোট ৫৩ জন। তাদের মধ্যে পূর্ণমন্ত্রী ৩৩ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৮ জন এবং উপমন্ত্রী দুজন।

প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশের মধ্য দিয়ে মন্ত্রিপরিষদের চারজন টেকনোক্র্যাট সদস্য পদত্যাগ করবেন। তাঁরা হলেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, প্রবাসীকল্যাণ ও কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

এদিকে মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম জানিয়েছেন, চারজন টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী তাঁদের পদত্যাগপত্র প্রধানমন্ত্রীর কাছে জমা দেবেন। প্রধানমন্ত্রী তা অনুমোদন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠাবেন। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সেটি অনুমোদনের জন্য রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে পাঠাবে। রাষ্ট্রপতির কার্যালয় থেকে অনুমোদন পাওয়ার পর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ ব্যাপারে প্রজ্ঞাপন জারি করবে।

এ সময় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আরো জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে বিভিন্ন রাজনৈতিক জোটের সঙ্গে যে সংলাপ চলছে, তার ‌‘ফলাফল বা সিদ্ধান্ত’ জানাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করবেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘৭ নভেম্বরের পর কারো সঙ্গে সংলাপের সুযোগ নেই। সংলাপ শেষে সংলাপের ফল জানানোর জন্য আগামী বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় গণভবনে সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’

এদিকে আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সংলাপ হওয়ার কথা রয়েছে। আগামীকাল বুধবার ফের ছোট পরিসরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে বসবে বিএনপি নেতৃত্বাধীন পাঁচটি দলের মোর্চা সংগঠন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

এরপর ৮ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন (ইসি) জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবে। এ দিন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে. এম. নুরুল হুদা জাতির উদ্দেশে ভাষণের মধ্য দিয়ে ভোটের দিন জানাবেন।