ঢাবির বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাগিংয়ের বিষয়টি ভুলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে: উপাচার্য

র‌্যাগ ডে উৎসব নয়, র‌্যাগিং বন্ধে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকালের ঢাবির বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাগিং এর বিষয়টি ভুলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে। শিগগিরই সংশোধনী করে বিজ্ঞপ্তি দেবে প্রশাসন বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান।

বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকালে এ তথ্য জানান তিনি। তিনি বলেন, শিক্ষা সমাপনী অনুষ্ঠান বা গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠান বন্ধ হয়নি।

এর আগে, ‘র‌্যাগ ডে’ কে অমানবিক, নিষ্ঠুর ও নীতিবহির্ভূত উৎসব আখ্যায়িত করে তা নিষিদ্ধ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) একাডেমিক কাউন্সিলের ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত হয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গণসংযোগ দপ্তর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সভায় কথিত ‘র‌্যাগ ডে’ নামে অমানবিক, নিষ্ঠুর ও নীতিবহির্ভূত উৎসব আয়োজন নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে সমন্বিতভাবে অসমাপ্ত সব পরীক্ষা গ্রহণ ও চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের অনুমোদন দেয়া হয়।

এ বিষয়ে ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বলেন, র‌্যাগ ডে উদযাপন করতে গিয়ে অনেক সময় কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটানো হয়। তাই যেসব উদযাপন এ রকম অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্ম দেয় সেগুলো নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে মার্জিত উপায়ে আয়োজিত বিদায় অনুষ্ঠান বা সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজনে কোনো বাধা থাকবে না।

সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় চেয়ারম্যান, ইন্সটিটিউটের পরিচালক ও একাডেমিক পরিষদের তিনশ সদস্য যুক্ত ছিলেন।

একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় অনুষদ/বিভাগ/ইনস্টিটিউটকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সমন্বিতভাবে অসমাপ্ত সব পরীক্ষা গ্রহণ ও চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের অনুমোদন দেয়া হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তি উপলক্ষে মৌলিক গবেষণা প্রকল্প গ্রহণ ও গবেষণাধর্মী প্রকাশনার ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।