তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ প্রধানমন্ত্রীর

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানকে বাংলাদেশ সফরে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মুজিববর্ষ উপলক্ষে তাকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে গণভবন থেকে ভার্চুয়াল কনফারেন্সে তুরস্কের আঙ্কারায় নবনির্মিত বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি আমন্ত্রণ জানান।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের পাশে থাকার জন্য তুরস্ক সরকার ও জনগণকে ধন্যবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রায় ৩ বছর হতে চললো রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত যাওয়া উচিত। আর এ ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা পালন করতে পারে বন্ধুরাষ্ট্র তুরস্ক। এ সময় মুজিববর্ষে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও ফার্স্টলেডিকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে তুরস্ক থেকে যুক্ত হন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন ও তুরস্ক পরারাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসগলু। শুরুতে নবনির্মিত বাংলাদেশ ভবনের প্রামান্যচিত্র দেখানো হয়। নিজস্ব এই ভবন তৈরি করতে খরচ হয় প্রায় ৪৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা। ৪ হাজার ২৮৩ বর্গমিটার ক্ষেত্রফল আয়তনবিশিষ্ট দূতাবাস কমপ্লেক্সের মধ্যে রয়েছে অফিস ভবন, রাষ্ট্রদূতের বাসভবন, ‘বিজয় একাত্তর’ নামের ২২৯ আসন সংখ্যার উচ্চ-প্রযুক্তিসম্পন্ন মিলনায়তন, স্বয়ংক্রিয় মেকানিক্যাল ও ইলেকট্রিক্যাল সিস্টেম, মসজিদ, ব্যায়ামাগার, বাংলাদেশি সামগ্রীর প্রদশর্নী কেন্দ্র, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ ও ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং আর্থ-সামাজিক বিষয়ে একটি পাঠাগার।

২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তুরস্ক সফরের সময় উভয় দেশের মধ্যে নিজ নিজ রাজধানীর কূটনৈতিক এলাকার প্লট হস্তান্তর করা হয়। ২০১৮ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর এ কমপ্লেক্স নির্মাণের কাজ শুরু হয়।