‘দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হতে আভাস দিয়েছেন নেত্রী’

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার আভাস দিয়েছেন জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন: দলীয় সিদ্ধান্ত যারা মানেননি তাদের বিষয়ে আমি নেত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। নেত্রী তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার আভাস দিয়েছেন। পরবর্তী ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

বুধবার দুপুরে গুলিস্তানে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক বর্ধিত সভায় তিনি এ কথা বলেন। ২৩ জুন আওয়ামী লীগের ৭০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই বর্ধিত সভার আয়োজন করে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ।

তবে উপজেলা পর্যায়ে খুব বেশি বিদ্রোহী ছিলেন না দাবি করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন: আমরা জাতীয় নির্বাচনে ইতিহাসের এক বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছি। শেষ পর্যন্ত মাঠে মাত্র দু’জন বিদ্রোহী ছিল। আগে কয়েকজন বিদ্রোহী ছিল ঠিক কিন্তু তারা নির্বাচনের আগেই নিজেদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছে।

যোগ করেন: উপজেলা স্থানীয় পর্যায়ের নির্বাচন। এখানে কিছু বিদ্রোহ-কলহ রয়েছে। গতকাল আমরা যে নির্বাচন করেছি, সে নির্বাচনে ৬ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে। কাজেই এখানে অর্ধেকই বিদ্রোহী এ কথা বলার কোন কারণ নেই। আগেই ৬ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত এর অর্থ হচ্ছে দলের মধ্যে কেউ বিদ্রোহী হয়নি। তবে এ নির্বাচনে সব মিলিয়ে সাত জন বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল।

বিদ্রোহীদের বিষয়ে আরও বেশি কঠোর হবার ঘোষণা দিয়ে কাদের বলেন: তাদের নিয়ে আমি নেত্রীর সঙ্গে আলাপ আলোচনা করেছি। নেক্সট ওয়ার্কিং কমিটির মিটিংয়ে আমরা শৃঙ্খলা ভঙ্গের বিষয়ে আরো বেশি কঠোর হবো। শৃঙ্খলা যারা ভঙ্গ করেছেন তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করব। নেত্রী এমনটাই আভাস দিয়েছেন। নেক্সট ওয়ার্কিং কমিটির মিটিংয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যের কারণেই খালেদা জিয়া মুক্তি পাচ্ছে না বিএনপি নেতাদের এমন দাবি হাস্যকর দাবি করে কাদের বলেন: আমি বলেছি বেগম জিয়ার জামিন-মুক্তি সবই আদালতের বিষয়। আর আমার বক্তব্যের কারণে বেগম জিয়ার মুক্তি হচ্ছে না এমন হাস্যকর মন্তব্য বিএনপি নেতারা কেমন করে করছেন আমার জানা নেই। সরকার কখনই আদালতের ওপর হস্তক্ষেপ করে না। আদালত স্বাধীনভাবে কাজ করছে। যার প্রমাণ এর মধ্যে বেগম জিয়া ৩০-৩২টি মামলায় জামিন পেয়েছেন।