দুর্নীতির অভিযোগ অভিযোগকারীদের প্রমাণ করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

আন্দোলনকারীরা যাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করছেন, তা তাদের প্রমান করতে হবে তবে যদি তারা তা প্রমাণে ব্যর্থ হয় তাহলে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাে এই কথা বলেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার অসুস্থ, অসচ্ছল ও দুর্ঘটনায় আহত সাংবাদিক এবং নিহত সাংবাদিক পরিবারের সদস্যদের অনুকূলে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক আর্থিক সহায়তা-ভাতা অনুদানের চেক বিতরণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সময় তিনি এ মন্তব্য করেন।

দিনের পর দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে সেটা আমি বরদাশত করতে পারি না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুখে বললেই হবে না দুর্নীতিকারীর বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট প্রমাণ দিতে হবে। যদি না দিতে পারে তাহলে অভিযোগকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তি হবে।

তিনি বলেন, আমি দেখছি কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে। ভিসিকে দুর্নীতিবাজ বলছে। যারা দুর্নীতির অভিযোগ আনছে তাদের এই অভিযোগ প্রমাণ করতে হবে, তাদের তথ্য দিতে হবে। তারা তথ্য দিলে আমরা ব্যবস্থা নিব। কিন্তু তারা তথ্য দিতে পারবে না দুর্নীতি দুর্নীতি বলে ক্লাসের সময় নষ্ট করবে, ক্লাস চলতে দিবে না, ইউনিভার্সিটি চলতে দিবে না, অন্দোলনের নামে ভিসির বাড়ি আক্রমণ, অফিসে আক্রমণ করবে। আমি বলবো এটার এক ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের করবী হলে অনুদানের চেক বিতরণ করার সময় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানসহ সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল মালেক।

সারাদেশের ৫৩ জন অসুস্থ, অসচ্ছল ও দুর্ঘটনায় আহত এবং প্রয়াত সাংবাদিক পরিবারের সদস্যদের হাতে কল্যাণ ট্রাস্টের সহায়তার অনুদানের অর্থ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই ফান্ড থেকে এখন পর্যন্ত ১৩ কোটি ৫৮ লাখ টাকা সহায়তা পেয়েছেন ১ হাজার ৭১৪ জন সাংবাদিক।