দ্রাবিড়ের পাশে দাঁড়িয়ে বিসিসিআইকে একহাত নিলেন কুম্বলে


কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান রাহুল দ্রাবিড়ের বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ এনেছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। বিষয়টি নিয়ে সমালোচনা করছেন দেশটির সাবেক ক্রিকেটাররা। ইতিমধ্যে এ ইস্যুতে তার পাশে দাঁড়িয়েছেন দলটির সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি। এবার দ্য ওয়ালখ্যাত ব্যাটারের হয়ে ব্যাট ধরলেন স্পিন লিজেন্ড ও প্রাক্তন কোচ অনিল কুম্বলে।

বিসিসিআইকে খোঁচা দিয়ে কুম্বলে বলেন, সব পেশায় স্বার্থের সংঘাত আছে, থাকবে। পেশাদার ক্রিকেটারদের স্বার্থের সংঘাত ঘটবেই। বোর্ড কীভাবে এটা নিয়ন্ত্রণ করছে, সেটাই মুখ্য বিষয়। কারো ওপর অর্পিত দায়িত্ব সে সঠিকভাবে পালন করলে তো কোনো সমস্যা দেখার কথা নয়।

তিনি বলেন, ভারতের হয়ে এখন পর্যন্ত খেলেছেন ৩০০ জনের মতো ক্রিকেটার। অর্ধেক বেঁচে আছেন। খুব কম সাবেক ক্রিকেটার ভারতীয় ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন। তাই যারা দায়িত্ব পালন করছেন, তাদের এভাবে অনুৎসাহিত করলে, সেটা দেশের ক্রিকেটের জন্য খারাপ হবে। তদুপরি এ ধরনের কিছু দেখতে না চাইলে, ক্রিকেটের সঙ্গে জড়িত নয় এমন লোকদের অ্যাসোসিয়েশন, ক্লাব, ফ্র্যাঞ্চাইজির দায়িত্ব দিতে হবে।

এর আগে একই ব্যাপারে সোশ্যাল মিডিয়া টুইটারে সৌরভ লেখেন, দ্রাবিড়কে স্বার্থের সংঘাত ইস্যুতে নোটিস পাঠিয়েছে বিসিসিআই। ভারতের ক্রিকেটে এ এক নতুন ট্রেন্ড। এটা নিয়মিত খবরে থাকার ভালো উপায়। ঈশ্বর ভারতীয় ক্রিকেটকে রক্ষা করুন।

মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য সঞ্জীব গুপ্তার অভিযোগের ভিত্তিতে দ্রাবিড়ের বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ এনেছে ভারতীয় বোর্ড। বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী সংস্থার নীতি দেখভাল কর্মকর্তা অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ডি কে জৈন গেল বুধবার তাকে কারণ দর্শানোর নোটিস পাঠান।

বর্তমানে ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন দ্রাবিড়। পাশাপাশি চেন্নাই সুপার কিংসের মালিকানাধীন কোম্পানি ইন্ডিয়া সিমেন্টসের সহসভাপতি হিসেবেও দায়িত্বরত আছেন তিনি। তাই তার বিরুদ্ধে একসঙ্গে একাধিক পদ আঁকড়ে থাকার অভিযোগ করেছেন সঞ্জীব।

দ্রাবিড়ের একইসঙ্গে পরস্পর বিরোধী দুটি দায়িত্বে থাকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন গুপ্তা। তার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিসিসিআইয়ের হয়ে নোটিশ পাঠান জৈন। দ্রাবিড়কে জবাব দিতে দুই সপ্তাহ সময় বেধে দিয়েছে বোর্ড।