ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে বাড়ির রাস্তা বন্ধ


কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ধর্ষণের মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাড়িতে যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে ১১টি পরিবারকে জিম্মি করে রাখার অভিযোগ উঠেছে প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি উপজেলার মক্রবপুর গ্রামের পূর্বপাড়ার জয়নাল আবেদীন মেস্তরীর বাড়ির। এ ব্যাপারে জয়নাল ১৪ নভেম্বর কুমিল্লা সহকারী জজ আদালতে মামলা করেন।

মামলা ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়, মক্রবপুরের পূর্বপাড়ার (আমজাদ মার্কেট) জয়নাল মেস্তরীর বাড়িতে ইউছুফ, কালাম, রবিউল হক, হাছান, হোসেন, সোবহান, সামছুল হক, আছিয়া বেগম, শহরবানু, আনোয়ারা বেগমেরসহ ১১টি পরিবারের বসবাস। ৩০ বছর ধরে তারা ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল করে আসছিল। গত ২৮ জুলাই ওই বাড়িতে ধর্ষণের শিকার হয় এক নারী। এ ঘটনায় ওই নারী একই গ্রামের লিটন, রবু ও শহীদকে আসামি করে নাঙ্গলকোট থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করে। প্রধান আসামি লিটন জেলহাজতে রয়েছে। মামলায় জয়নাল মেস্তরী সহযোগিতা করেছেন অভিযোগে প্রায় দেড় মাস ধরে তাঁরসহ ১১টি পরিবারের বাড়ির চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয় একই গ্রামের প্রভাবশালী রবিউল, কালু, খোরশেদ, শিপনসহ বহিরাগত ৮-১০ জনের একটি গ্রুপ। এ ছাড়া প্রভাবশালীরা ধর্ষণ মামলাটি তুলে নিতে জয়নাল মেস্তরীর পরিবারের লোকজনকে হুমকিধমকি দিয়ে আসছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নাঙ্গলকোট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ ফরিদ আহম্মেদ জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তাঁকে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জানিয়েছেন ঘটনাটি মীমাংসা করে দেওয়া হবে।