নৌবন্দরে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত


চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী সময়ের নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মৌসুমি স্থল নিম্নচাপটি আরো উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে লঘুচাপ আকারে বর্তমানে বাংলাদেশের কুমিল্লা ও ভারতের ত্রিপুরা অঞ্চলে অবস্থান করছে। এটি আরো উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ু উত্তর বঙ্গোপসাগরে সক্রিয় অবস্থায় আছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালার সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

ভারি বর্ষণের সতর্কবাণীর পূর্বাভাসে বলা হয়, বেলা ১১টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ঢাকা, খুলনা ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও দমকা/ ঝড়ো হাওয়াসহ ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণ হতে পারে। পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা হ্রাস পেতে পারে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে আরো বলা হয়, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা/ ঝড়ো হাওয়া, বিজলি চমকানোসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণ হতে পারে।
রংপুর বিভাগসহ রাজশাহী ও নওগাঁ অঞ্চলের ওপর দিয়ে বিরাজমান তাপপ্রবাহ প্রশমিত হতে পারে।

আবহাওয়ার সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়, উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি ঘনীভূত ও মৌসুমি নিম্নচাপে পরিণত হয়ে ১০ জুন রাত ৯টার দিকে (সীতাকুণ্ডের কাছ দিয়ে) চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করে এবং দুর্বল হয়ে বাংলাদেশের কুমিল্লা ও ভারতের ত্রিপুরা অঞ্চলে লঘুচাপরূপে অবস্থান করছে।

এটি আরো উত্তর ও উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে। মৌসুমি বায়ু উত্তর বঙ্গোপসাগরে প্রবল অবস্থায় রয়েছে এবং গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালার সৃষ্টি অব্যাহত রাখছে। দক্ষিণ-পশ্চিমা মৌসুমি বায়ু চট্টগ্রাম, সিলেট, ময়মনসিংহ ও ঢাকা বিভাগে বিস্তার লাভ করেছে।