‘পুনরায় নির্বাচন সম্ভব না’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ বলেছেন, ‘যে যাই বলুক, যে দাবিই উঠুক না কেন, পুনরায় নির্বাচনের কোনো সুযোগ নেই।’

মঙ্গলবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

উপ-উপাচার্য বলেন, ‘দেশের মানুষ ডাকসু নির্বাচন দেখেছে মিডিয়ার মাধ্যমে, মিডিয়া সাক্ষী। দুইটা হলের মধ্যে একটাতে সামান্য অনিয়ম হয়েছে। আমরা সেখানে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়েছি। আরেকটা হলে অনিয়ম বলব না, হাঙ্গামা হয়েছে। কাজেই ডাকসু নির্বাচন যারা বর্জন করেছে, সেটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। তবে নির্বাচন বাতিল করার এখন কোনো সুযোগ আছে বলে মনে করি না।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলে রাতেই ব্যালট পেপারে সিল মারার ঘটনায় আমাকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আমি কালই ঘটনাস্থলে গেছি। আজ সকাল ১০টায় কমিটির অন্য সদস্যদের সঙ্গে বসে মিটিং করেছি। ঘটনাস্থলে ফের পরিদর্শন করেছি। হলের সাবেক ও বর্তমান প্রোভোস্ট, রিটার্নিং কর্মকর্তারা তদন্তের প্রাথমিক কাজ এগিয়ে নিয়েছে। আমরা যথা সময়ে তদন্ত প্রতিবেদন প্রস্তুত করে ভিসির কাছে হস্তান্তর করব।’

ছাত্রলীগ বাদে সবাই নির্বাচন বয়কট করেছে। ভোরে ফলাফল ঘোষণা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করে ছাত্রলীগ। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে জয়-পরাজয় আছে। পরাজিত হলে প্রতিক্রিয়া তো আসবেই। অনিয়মের ব্যাপারে আমরা ব্যবস্থা তো নিয়েছি। আর ফলাফল তো হাতে নয়, মেশিনে গণনা হয়েছে, সুতরাং কারচুপি বা অনিয়মের সুযোগ নেই।’