প্লাস্টিক মুক্ত শপিং সেন্টার


আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাপন যেন দিন দিন প্লাস্টিকের ওপর নির্ভরশীল হয়ে গেছে। এ অবস্থায় বিপুল পরিমাণ প্লাস্টিক যেমন পরিবেশের ক্ষতি করছে তেমন তার স্বাস্থ্যগত ক্ষতিকর বিষয়গুলোও কম নয়। তবে নতুন করে আশার আলো দেখাচ্ছে নেদারল্যান্ডের ও যুক্তরাজ্যের শপিং সেন্টার।

শুধু বাংলাদেশই নয়, বিশ্বের নানা দেশ বর্তমানে এই প্লাস্টিকের সমস্যায় জর্জরিত। সাগর-মহাসাগরে বিপুল পরিমাণে প্লাস্টিক পাওয়া যাচ্ছে। এগুলো সামুদ্রিক প্রাণীরা খাচ্ছে, যা মানুষের খাদ্য হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। ফলে এক পর্যায়ে ক্ষতিকর প্লাস্টিকগুলো মানুষের দেহে প্রবেশ করছে। এতে ক্যান্সারসহ নানা মারাত্মক রোগের ঝুঁকি বাড়ছে।

সাধারণত আমরা কোনো দোকানে কেনা কাটা করতে গেলে বিভিন্ন ধরনের প্লাস্টিকের ব্যাগে প্যাকেট করে রাখা পণ্য কিনে থাকি। এগুলো ছাড়াও রয়েছে প্লাস্টিকের কন্টেইনার, গ্লাস, পাইপ ইত্যাদি।

নেদারল্যান্ডের একোপ্লাজা নামে শপিং সেন্টারটি অবশ্য ব্যতিক্রম। এই প্লাস্টিকের কোনো ব্যবহারই করে না। এক্ষেত্রে তারা কাচের জারসহ নানা ধরনের বিকল্প ব্যবহার করে।

আপনি যদি একোপ্লাজাতে কিছু কিনতে যান তাহলে আপনাকে তারা কোনোভাবেই প্লাস্টিকের শপিং ব্যাগ দেবে না। আপনি যদি জিনিস নেওয়ার জন্য কোনো ব্যাগ সঙ্গে না নেন তাহলে তারা কাগজের ঠোঙ্গা সরবরাহ করবে।

প্লাস্টিক বর্জন করে প্রায় একই ধরনের কাজ করছে যুক্তরাজ্যের একটি শপিং সেন্টার, যার নাম আর্থ ফুড লাভ। সেখানেও প্লাস্টিক বর্জন করে পরিবেশসম্মত উপায়ে পণ্য রাখা হচ্ছে এবং তা ক্রেতাদের সরবরাহ করা হচ্ছে।

বাংলাদেশে মুদি দোকানিরা বিভিন্ন জার ও অন্যান্য আধারে পণ্য রেখে তা বিক্রি করার চল থাকলেও তা এখন ক্রমে কমে গেছে। তবে পরিবেশের দিক বিবেচনা করলে সেটিই সবচেয়ে ভালো উপায় হিসেবে এখন প্রমাণিত হচ্ছে।