‘পড়ালেখার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতেই নিরাপত্তা চৌকি’


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ালেখার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতেই নিদ্দিষ্ট এলাকায় নিরাপত্তা চৌকি বসানো হচ্ছে। পাশাপাশি বহিরাগতদেরও পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

আজ মঙ্গলবার উপাচার্য নিচ ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় সার্বিক নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনাকালে তিনি একথা জানান।

উপাচার্য বলেন, নির্ধারিত এলাকায় চৌকি বসাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জনবল দেওয়া হবে। তাদের কাজ হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছাড়া অন্যদের পর্যবেক্ষণ করা।

এ সময় তিনি সরকারি চাকরিতে কোটাপ্রথা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের জঙ্গি বলেননি দাবি করে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, আমি কোটা আন্দোলনকারীদের জঙ্গি বলিনি। আমি বলেছি শিক্ষার্থীদের কার্যক্রম উগ্রপন্থী জঙ্গিদের সঙ্গে মিলে যায়। এর মানে এই নয় যে আমি শিক্ষার্থীদের জঙ্গি বলেছি।

গতকাল সোমবার ঢাবি কর্তৃপক্ষ বা প্রক্টরের অনুমতি ছাড়া ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের ঘোরাফেরা বা কোনো কার্যক্রম চালনো যাবে না বলে একটি বিবৃতি দেয়। গত বৃহস্পতিবার রাতে প্রভোস্ট কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এ ছাড়া প্রভোস্ট কমিটির ওই বৈঠকে বেশকিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে সেগুলো হলো, যাদের ছাত্রত্ব নেই তারা হলে অবস্থান করতে পারবে না। এমনকি হল প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া কোনো ছাত্রের অভিভাবক কিংবা অতিথি হলে অবস্থান করতে পারবে না।