ফেদেরারের নাচের পরীক্ষা নিতে চান মুগুরুজ

উইম্বলডনের শেষে পুরুষ ও মেয়েদের চ্যাম্পিয়নকে একসঙ্গে নাচতে হবে। ঐতিহ্যটা এখন আর নেই। ১৯৭৭ সালের পরে বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবু নতুন উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন গারবিনে মুগুরুজাকে প্রশ্নটা করা হয়েছিল। একটু ভেবে মুগুরুজার উত্তর, ‘রজার। দেখতে চাই নাচেও অতটাই দক্ষ কি না ও। ‘ এই বয়সেও টেনিস কোর্টে প্রতিদ্বন্দ্বীদের রীতিমতো নাচিয়ে ছেড়েছেন ফেদেরার। এবার তারই নাকি নাচের পরীক্ষা নেবেন মুগুরুজ!

২৩ বছর বয়সী স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়ন উইম্বলডনের ঐতিহ্যবাহী ট্রফিটা হাতে তুলে শুধু দ্বিতীয় গ্র্যান্ড স্ল্যামই জেতেননি। আরও একটা রেকর্ড করেছেন যা মেয়েদের টেনিস সার্কিটে আর কারও নেই। গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনালে সেরেনা আর ভেনাস দুই উইলিয়ামস বোনকেই হারানোর রেকর্ড। গত বছর ফরাসি ওপেনের ফাইনালে সেরেনাকে হারিয়েছিলেন। শনিবার হারালেন ভেনাসকে।

অথচ দ্বিতীয় স্প্যানিশ মেয়ে হিসেবে উইম্বলডন জেতাই হত না মুগুরুজার যদি না ছোটবেলায় ভেনেজুয়েলা থেকে স্পেনে চলে আসতেন। তার মা ভেনেজুয়েলার। বাবা স্প্যানিশ। মুগুরুজার জন্মও ভেনেজুয়েলায়। তার দুই দাদাও টেনিস খেলেছেন এটিপি সার্কিটে ভেনেজুয়েলার হয়ে। কিন্তু পরে টেনিস ছেড়ে দেন। মুগুরুজার অবশ্য ঠিক করেন স্পেনের প্রতিনিধিত্ব করবেন।

৬ বছর বয়েসে তাই স্পেনে চলে আসেন। সিদ্ধান্ত নেওয়াটা যদিও সহজ ছিল না। তার ভাষায়, ‘আমার পরিবারের অর্ধেক ভেনেজুয়েলায়, অর্ধেক স্পেনে। স্পেনকে বাছলে ভেনেজুয়েলার আত্মীয়রা রাগ করবে। ভেনেজুয়েলা বাছলে স্পেনের আত্মীয়রা। ‘