বন্ধুত্ব থেকে সম্পর্ক গাঢ়, অন্তরঙ্গ ছবি ভাইরাল

হুমকি দিয়ে প্রেমিকের ম্যাসেজ। অন্তরঙ্গ ছবি ভাইরাল করে দেওয়ার অনবরত চাপ। অপমান সহ্য করতে না পেরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন কলেজছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের নিউটাউনের রামকৃষ্ণপল্লিতে।

রাস্তায় যাতায়াতের পথেই মাঝেমধ্যে এলাকার যুবক হৃদয় মণ্ডলের সাথে দেখা হত দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী মৌসুমী ব্রহ্মর। পরিচয় থেকে বন্ধুত্ব আর সময়ের সাথে বন্ধুত্ব থেকে সম্পর্ক গাঢ় হতে থাকে ধীরে ধীরে। ঘনিষ্ঠ হতে থাকে দু’জনে। পাড়ার মোড়ে, পার্কে কিংবা রেস্টুরেন্টে প্রায়শই একসঙ্গে দেখা যেত তাদের। কানাঘুষো শুনেই মেয়ের সাথে হৃদয়ের সম্পর্ক জানতে পারে মৌসুমীর পরিবার।

কিন্তু এত ছোটো বয়সে মেয়ের প্রেম মেনে নিতে পারেননি মৌসুমীর বাবা-মা। এই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে বলেছিলেন তাকে। বাবা-মায়ের চাপে পড়ে ইদানীং হৃদয়ের সাথে যোগাযোগ কমিয়ে দেয় মৌসুমী। এরপর থেকেই চিড় ধরতে থাকে সম্পর্কে।

মৌসুমীর পরিবারের অভিযোগ, গত কয়েক মাস ধরে হৃদয় মণ্ডল বিভিন্নভাবে মৌসুমীর ওপর মানসিক চাপ তৈরি করছিল। অনবরত মৌসুমীকে অন্তঃরঙ্গ মুহূর্তের ছবি ফাঁস করে দেওয়ার জন্য হুমকি ম্যাসেজ করছিল।

পরিবারের দাবি, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত মৌসুমী কয়েকবার সে কথা তার মাকেও জানিয়েছিল।

বৃহস্পতিবার রাতে মৌসুমীর মোবাইল আবারও হৃদয়ের ম্যাসেজ আসে। সেই ম্যাসেজ দেখার সময়ই মায়ের কাছে ধরা পড়ে যায় মৌসুমী। মেয়েকে বুঝেই রাতে ঘুমাতে চলে যান তার মা। এরপর রাতে মেয়েকে ঘরে দেখতে না পেয়ে খোঁজ শুরু করেন মৌসুমীর বাবা-মা।

বাথরুমে গিয়ে তারা দেখতে পান, গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে মৌসুমী। পরিবারের অভিযোগ, হৃদয়ের হুমকি ম্যাসেজ পেয়েই অপমানে আত্মহত্যা করেছে মৌসুমী। তদন্ত শুরু করেছে নিউটাউন থানার পুলিশ।