বাংলাদেশের ভালো অংশীদার হতে চায় চীন: চীনের রাষ্ট্রদূত

বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেছেন, তার দেশ উন্নয়ন শেয়ার করার মাধ্যমে বাংলাদেশের ভালো অংশীদার হতে চায়।
তিনি বলেন, ‘আমরা অভিন্ন উন্নয়নের জন্য ভালো অংশীদার হতে চাই। সর্বোচ্চ আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করে এমন প্রতিবেশী এবং পরস্পরের জন্য কাজ করে এমন ভালো ভাই হতে চাই।’
তিনি বলেন, আসুন আমরা একযোগে কাজ করি এবং চায়না স্বপ্ন ও সোনার বাংলার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করি। বাংলাদেশ তার নিজের উন্নয়নের পথ খুঁজে পেয়েছে এবং তা এর নিজের প্রয়োজনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ। বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নের গতিধারা এ অঞ্চল তথা সারা বিশ্বের তুলনায় অধিক ঊর্ধ্বমুখী।
রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আমাদের জনগণ পরস্পরের ঘনিষ্ঠ। আমাদের জাতীয় অবস্থার মধ্যে সাদৃশ্য রয়েছে এবং আমাদের উন্নয়নের লক্ষ্যও একই, যা একযোগে কাজ করার বিপুল সুযোগ করে দেয়।
চীনা রাষ্ট্রদূত বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে গণচীনের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন এবং চীন-বাংলাদেশ সম্পর্কের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।
অনুষ্ঠানে কূটনীতিক, ব্যবসায়ী, সুশীল সমাজের সদস্য ও সিনিয়র সাংবাদিকেরা উপস্থিত ছিলেন।
চীনের রাষ্ট্রদূত বলেন, তারা বিদ্যমান সম্পর্ক উন্নয়ন, কৌশলগত সহযোগিতা সংহতকরণ ও পারস্পরিক আস্থা গভীর করতে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী।
তিনি বাংলাদেশকে চীনের বেল্ট এন্ড রোড ইনিশিয়েটিভের (বিআরআই) সঙ্গে যুক্ত হওয়া প্রথম দেশগুলোর অন্যতম উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ বিআরআই নির্মাণে চীনের কেবল অংশীদারই নয়, বরং এ উদ্যোগ থেকে যে সব দেশ লাভবান হবে বাংলাদেশ তাদেরও অন্যতম।