বিশ্বের ১০ নারীর কাতারে এক বাংলাদেশি

জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান থেকে অবদান রাখায় ‘এসডিজি ২০১৭ পাইওনিয়ারস’ পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির। ২১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে ‘ইউনাইটেড নেশনস গ্লোবাল কমপ্যাক্ট লিডারস সামিট ২০১৭’ সম্মেলনে টেকসই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন বিভাগে এ পুরস্কার দেওয়া হবে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে ভূমিকা রাখায় এ বছর বিশ্বের মোট ১০ জনকে সম্মানজনক এ পুরস্কার দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে ইউএন গ্লোবাল ইমপ্যাক্টের প্রধান নির্বাহী এবং নির্বাহী পরিচালক লিজ কিংগো এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, তথ্য-প্রযুক্তিতে নারীর অংশগ্রহণে সোনিয়া বশির কবির হলেন প্রতিভাসম্পন্ন একজন নারী। ডিজিটাল সাক্ষরতাবিষয়ক বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তিনি তথ্য-প্রযুক্তিতে নারীদের নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন। নারীদের ডিজিটাল শিক্ষার ক্ষমতায়নে ভূমিকা রাখায় সোনিয়া বশির কবিরকে সম্মানসূচক এ পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সিঙ্গাপুর সফররত সোনিয়া বশির কবির টেলিফোনে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাংলাদেশের নারীরা খুবই প্রাণবন্ত ও মেধাবী। তারা প্রযুক্তি গ্রহণের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিতে আমাদের মতো মানুষের জন্য অপেক্ষা করছে। জাতিসংঘের গ্লোবাল কমপ্যাক্ট দল ২০১৭ সালের এসডিজি নেতৃত্বদানকারী হিসেবে আমাকে নির্বাচিত করায় আমি অত্যন্ত সম্মানিত বোধ করছি। আমি প্রযুক্তিতে দেশের নারীদের অনুপ্রাণিত করার পাশাপাশি তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে আগ্রহী। ‘

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি মুন স্বল্পোন্নত দেশগুলোর (এলডিসি) জন্য ২০১৫ সালে তিন বছরের জন্য সোনিয়া বশির কবিরকে টেকনোলজি ব্যাংকের গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য হিসেবে নিযুক্ত করেন।

বাংলাদেশ উইমেন ইন টেকনোলজির (বিডাব্লিউআইটি) ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সহপ্রতিষ্ঠাতা হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি সোনিয়া বশির কবির বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস(বেসিস), নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির (এনএসইউ) বিজনেস ও কম্পিউটার সায়েন্স স্কুল ও ইনডিপেনডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের (আইইউবি) বিজনেস স্কুলের বোর্ড সদস্য হিসেবেও কাজ করছেন।