ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম লিতুন জিরা

আবারও মেধার স্বাক্ষর রেখেছে যশোরের মনিরামপুরে হাত-পা ছাড়াই জন্ম নেয়া লিতুন জিরা। বৃহস্পতিবার গোপালপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় লিতুন প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

গোপালপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রেজাউল করিম জানান, এ ভর্তি পরীক্ষায় ৬৩ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। ১০০ নম্বরের মধ্যে লিতুন ৯৪ পেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করে। উপজেলার শেখপাড়া খানপুর গ্রামের প্রভাষক হাবিবুর রহমানের মেয়ে লিতুন মুখে ভর দিয়ে লিখে এবার প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষায় জিপিএ-৫ অর্জন করে।

অদম্য মেধাবী লিতুনের প্রবল ইচ্ছা ছিল মনিরামপুর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে পড়ার। এ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে যায় সে। লিতুনের সিট পড়ে দোতলায়।

বাবা হাবিবুর রহমান ও মা জাহানারা বেগম প্রতিবন্ধী মেয়েকে নিয়ে ওপরে উঠতে কষ্ট হবে বিধায় প্রধান শিক্ষক হায়দার আলীকে অনুরোধ করেন নিচের যে কোনো কক্ষে পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে। এ অনুরোধে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠে লিতুন ও তার বাবা-মার সঙ্গে অসদাচরণ করেন প্রধান শিক্ষক।

তারপরও বাবা-মা কষ্ট করে লিতুনকে দোতলায় নিয়ে পরীক্ষা দেওয়ান। ভর্তি পরীক্ষায় সে কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েও প্রধান শিক্ষকের অসদাচরণের প্রতিবাদে মনিরামপুর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভর্তি হয়নি।