মঙ্গলগ্রহে তিনটি হ্রদের সন্ধান পাওয়া গেছে!

বিজ্ঞানীরা মঙ্গল গ্রহের মাটির নিচে তিনটি হ্রদের অস্তিত্ব পেয়েছেন বলে দাবি করেছেন। ২০১৮ সালেও মঙ্গল গ্রহের দক্ষিণ মেরুতে এক বিরাট নোনা পানির হ্রদের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। ওই হ্রদটি বরফের নিচে চাপা পড়ে আছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানায়, ভবিষ্যতে মঙ্গলে বসবাস করতে হলে এই হ্রদের পানি কাজে লাগানো যেতে পারে বলে ধারণা করছেন বিজ্ঞানীরা। তবে বিজ্ঞানীরা এও বলছেন, মঙ্গল গ্রহের নতুন আবিষ্কৃত তিনটি হ্রদের পানি বরফে ঢাকা ও মাত্রাতিরিক্ত নোনা।

গত সোমবার সায়েন্স ম্যাগাজিন ন্যাচার অ্যাস্ট্রোনমিতে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গল গ্রহে পানি তরল অবস্থায় পাওয়া যাওয়ার পূর্ণ সম্ভাবনা রয়েছে। ২০১৮ সালে যে হ্রদটি মঙ্গল গ্রহের দক্ষিণে আবিষ্কার করা হয়, সেটি বরফ দিয়ে আচ্ছাদিত। এটি প্রায় ২০ কিলোমিটার প্রশস্ত। এখন পর্যন্ত মঙ্গল গ্রহে পাওয়া সবচেয়ে বৃহত্তম হ্রদ এটি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নতুন সন্ধান পাওয়া তিনটি হ্রদ প্রায় ৭৫ হাজার স্কয়ার কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বিস্তৃত, যা পরিমাণে জার্মানির প্রায় পাঁচ ভাগের এক ভাগ।

রোম বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞানী আলাইনা পেটিনেল্লি জানিয়েছেন, তাঁরা দুই বছর আগে আবিষ্কৃত হ্রদের চারপাশে আরো তিনটি হ্রদের সন্ধান পেয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, মঙ্গলগ্রহে তরল পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আগে মঙ্গলগ্রহকে একটি পানিবিহীন গ্রহ ভাবা হয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে সেই ভুল ধীরে ধীরে ভাঙছে। অবশ্য বিজ্ঞানীরা বহুদিন আগে থেকেই জানিয়েছিলেন, মঙ্গলগ্রহে একসময় প্রচুর পরিমাণে পানি প্রবাহিত হতো।