মরণোত্তর চক্ষু দান করলেন আরিফিন শুভ


‘অন্ধত্বের মতো হতভাগ্যের আর কিছু হয় না। আপনার-আমার একটু এগিয়ে আসাতে একটা মানুষ পৃথিবী দেখবে এটি অনেক বড় প্রাপ্তির বিষয়। তাই সবাইকে বলবো- এগিয়ে আসুন।’ এভাবেই মরণোত্তর চক্ষুদানে উৎসাহিত করে ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট দিয়েছেন চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ।

শুভ নিজেও মরণোত্তর চক্ষুদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি লিখেছেন: ‘চক্ষুদানের ব্যাপারে বর্তমানে অনেকের সঙ্গেই কথা হচ্ছে। বেশ কিছু ফাউন্ডেশনের সঙ্গে আলাপ করেছি। তবে এ বিষয়ে সরকারের সাহায্য প্রয়োজন। সেইসাথে দেশের প্রতিটি মানুষের কাছ থেকে সাহায্য চাই আমি।’

শুভ বলেন, ‘মৃত্যুর পর আমাদের শরীরের প্রয়োজন নেই। কিন্তু এই শরীর অন্য একজনের জীবন বদলে দিতে পারে। এজন্য মৃত্যুর পর আমার চোখ দান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যদি আমার দ্বারা একজন মানুষ এ সুন্দর পৃথিবী দেখতে পান তাহলে এরচেয়ে বড় আনন্দের বিষয় আর কী হতে পারে? ছোটবেলা থেকেই আমার ইচ্ছা ছিল চোখ দান করার। যখন স্কুলে পড়ি তখন থেকেই আমি চেয়েছি, আমার চোখ দিয়ে যেন কেউ একজন পৃথিবীর আলো দেখতে পায়। তাই আমি অন্যকে পৃথিবী দেখাতে মরণোত্তর চক্ষুদান করব ইনশাআল্লাহ।’

মডেলিং ও ছোটপর্দার মাধ্যমে শুভ’র অভিনয় যাত্রা শুরু। চলচ্চিত্র নির্মাতা খিজির হায়াত খানের ‘জাগো’ সিনেমায় তার চলচ্চিত্রে হাতেখড়ি। আরিফিন শুভ’র ‘ওয়ার্নিং’, ‘কিস্তীমাত’, ‘মুসাফির’, ‘ছুঁয়ে দিলে মন’, ‘অস্তিত্ব’, ‘নিয়তি’, ‘প্রেমী ও প্রেমী’, ‘ধ্যাততেরিকি’ সিনেমাগুলো মুক্তি পেয়েছে। খুব শিগগির তিনি ‘সাপলুডু’ সিমেমার শুটিং শুরু করবেন।