মিশরের হয়ে আর খেলবেন না সালাহ!


বিশ্বকাপে মিশরের বেস ক্যাম্প ছিল রুশ ফেডারেশনের অন্তর্ভূক্ত মুসলিম দেশ চেচনিয়ায়। গত শনিবার এই বেস ক্যাম্প থেকে চলে আসে মিশর। আসার আগে তাদের জন্য প্রেসিডেন্ট প্যালেসে নৈশভোজের আয়োজন করেন চেচনিয়ার রাষ্ট্রপতি রমজান কাদিরভ। তিনি সেখানে সালাহকে চেচনিয়ার সম্মানসূচক নাগরিকত্ব প্রদান করে সদন তুলে দেন।

এরপর থেকেই গুঞ্জন চলছে সালাহ মিশর ফুটবল দলের সঙ্গে ফিরবেন কিনা সেটা নিয়ে। কেউ কেউ বলছে সালাহ হয়তো আর মিশরে ফিরবেন না। মিশর জাতীয় দলের হয়ে ভবিষ্যতে আর খেলবেন কিনা সেটা ভেবে দেখছেন লিভারপুলের এই স্ট্রাইকার।

মিশর ফুটবল সংস্থা এমন গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছে। রোববার তারা এক প্রতিবেদনে জানায় সালাহ জাতীয় দলের সঙ্গে খুশি। তিনি মিশর ছেড়ে কোথাও যাচ্ছেন না। প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘সালাহ মিশর ছাড়তে চান এই খবর সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। সালাহ এখনো আমাদের সঙ্গে আছেন এবং মিশর দলের সঙ্গে তিনি বেশ ভালো আছেন। খুশিতে আছেন। তিনি তার সতীর্থদের সঙ্গে খাচ্ছেন, দুষ্টমি করছেন, হাসছেন। সে ঠিকমতো অনুশীলনও করছে। তার মানে হল কোনো সমস্যা নেই।’

সালাহ চেচনিয়ার নাগরিক হবেন কিনা সেটা পরে দেখা যাবে। কিন্তু চেচনিয়ার রাষ্ট্রপতি সালাহকে সম্মানসূচক নাগরিকত্ব দিয়ে এবং তাদের সঙ্গে ছবি তুলে ব্যাপক প্রচার পেয়েছেন। তাহলে সালাহ কী রমজান কাদিরভের বিরুদ্ধে ইমেজ রাইটসের মামলা করবেন? যেমনটা করেছিলেন গেল এপ্রিলে মিশর ফুটবল সংস্থার বিরুদ্ধে। সেই মামলা সালাহ জিতেছিলেনও। বিশ্বকাপের দুই মাস আগে সালাহর অনুমতি না নিয়েই ভোডাফোনের সঙ্গে চুক্তি করে মিশর ফুটবল সংস্থা। সেই চুক্তি অনুযায়ী সালাহর ছবি ব্যবহার করে বিলবোর্ড তৈরি করা হয়। এমন কী বিমানেও সালাহর ছবি লাগানো হয়। বিষয়টিতে বেশ ক্ষুদ্ধ হয়েছিলেন সালাহ। চেচনিয়ার রাষ্ট্রপতির এমন কাণ্ডেও খুশি হতে পারেননি তিনি।