যৌন হয়রানির শিকার হয়ে রুয়েট শিক্ষার্থীর মামলা


এবার যৌন হয়রানির শিকার হয়ে মামলা করেছেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) এক ছাত্রী।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় মামলা করেন তিনি। মামলায় অজ্ঞাতনামা পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে।

এর আগে গত ১০ আগস্ট স্ত্রীকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় মারধরের শিকার হন রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের একজন শিক্ষক। নগরীর সাহেববাজার মনিচত্বর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সোমবার রাতে ওই ঘটনায় তিন তরুণকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

সোমবার বিকেলে যৌন হয়রানির শিকার হন বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ওই ছাত্রী।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ফেসবুকে ওই শিক্ষার্থী লেখেন, তিনি রুয়েট থেকে বাসায় ফিরতে অটোরিকশায় ওঠেন। সেখানে রুয়েটের দুই শিক্ষার্থী ও একজন অপরিচিত এক ব্যক্তি ছিলেন। কিছুটা পথ যাওয়ার পর রুয়েটের দুই শিক্ষার্থী নেমে যায়। কিছুদূর যাওয়ার পর অটোরিকশাচালক ওই ব্যক্তিকেও নামিয়ে দেন। এরপর আরো চারজন ওঠে এবং তারা যৌন হয়রানি করে।

ওই শিক্ষার্থী তার ফেসবুক পোস্টে আরো লেখেন, নগর ভবনের সামনে পুলিশ দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে ওই চারজন তাকে অটোরিকশা থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়।

মহানগর ডিবি পুলিশের উপ-কমিশনার আবু আহাম্মদ আল মামুন বলেন, ‘রুয়েটের ওই শিক্ষার্থী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। এরপর ওই শিক্ষার্থীকে ডেকে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার রাতে তাকে ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এরপর ওই শিক্ষার্থী থানায় একটি মামলা করেন।’

নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, ‘মামলায় অটোরিকশা চালকসহ অজ্ঞাতনামা পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে।’

ওসি জানান, যে সড়কে ঘটনা ঘটেছে সে সড়কের পাশে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। আসামিদের শনাক্ত করে তাদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।