শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীনের ছেলের লাশ উদ্ধার

শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীনের ছেলে সুমন জাহিদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর খিলগাঁও বাগিচা এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ সময় তার শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন ছিল। সুরতহালের জন্য তার লাশ ডিআরপি (রেলওয়ে পুলিশ) থানা, কমলাপুরে রাখা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত পলাতক চৌধুরী মাঈনুদ্দিন ও আশরাফুজ্জামান খানের বিরুদ্ধে সাক্ষী ছিলেন তিনি।

শাজাহানপুর থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আব্দুল মাবুদ বলেন: সুমন জাহিদ নামে একজনের লাশ উদ্ধার হওয়ার খবর জেনেছি। এ সময় তার শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় ছিল। রেলওয়ে এলাকা থেকে লাশ উদ্ধার হওয়ায় বিষয়টি রেল পুলিশ দেখছেন। তিনি মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দিয়েছিলেন।

সুমন জাহিদের আত্মীয়ের বরাত দিয়ে পরিদর্শক আব্দুল মাবুদ আরো বলেন: সুমনের গ্রামের বাড়ি ফেনীতে, বেশিরভাগ সময় ফেনীতে কাটাতেন। তিনি ফারমার্স ব্যাংকে চাকরি করতেন, কিন্তু ব্যাংকটি দেউলিয়া হয়ে যাওয়ায় অভাব অনটনের মধ্যে সুমনকে পড়তে হয়। সুমনের বাড়িতেও জায়গা জমি নিয়ে নানান টান পোড়ন পোহাতে হচ্ছিল। সব কিছু মিলিয়ে তিনি কিছুটা হলেও মানসিকভাবে দুর্বল ছিলেন।

ডিআরপি, কমলাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়াসিন ফারুক বলেন, সুমন জাহিদ পথচারী ছিলেন। সকাল ১১টার দিকে তিনি ট্রেনে কাটা পড়েছেন। আশপাশের মানুষও সেটাই আমাদের বলেছেন। দুপুর ১টার দিকে আমরা তার লাশ উদ্ধার করেছি।

ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। কমলাপুর থানায় অপমৃত্যুর একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।