শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ। ‘সেনা-সমর্থিত’ তত্ত্বাবধায়ক সরকার কর্তৃক গ্রেপ্তার হওয়ার পর ২০০৮ সালের ১১ জুন তিনি কারামুক্ত হয়েছিলেন।

তৎকালীণ সরকারের ব্যর্থতার সুযোগে ২০০৭ সালের শুরুতেই জাতির কাঁধে চেপে বসে ‘সেনা-সমর্থিত’ তত্ত্বাবধায়ক সরকার। এ সরকারের দায়িত্ব গ্রহণ ও জরুরি অবস্থা জারির ছয় মাসের মধ্যেই ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই ভোররাতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সংসদ ভবন চত্বরে স্থাপিত বিশেষ কারাগারে আটক রাখা হয়।

এ সময় কারাগারের অভ্যন্তরে শেখ হাসিনা অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন বিদেশে চিকিৎসার জন্য তাকে মুক্তি দেওয়ার দাবি ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে। আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ক্রমাগত চাপ, আপসহীন মনোভাব ও অনড় দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়।

দীর্ঘ প্রায় ১১ মাস কারাভোগের পর ২০০৮ সালের ১১ জুন সংসদ ভবন চত্বরের বিশেষ কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, ‘বিএনপির কারণে দুবছর একটি সেনা-সমর্থিত সরকার জাতির সামনে বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছিল।’

শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রাজধানীর ইস্কাটন লেডিস ক্লাবে আজ বিকেল সাড়ে ৫ টায় এক আলোচনা সভা, দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখবেন।

এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে সকাল ১০টায় গুলিস্তান মহানগর নাট্যমঞ্চে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে আওয়ামী যুব লীগ। সভায় খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন।