শেষ মুহূর্তে গরু না থাকায় বেশি দামে কিনতে হচ্ছে

রাজধানীর হাটগুলোতে দেখা যায়, পশু কম কিন্তু সে তুলনায় কোরবানি দিতে ইচ্ছুক ক্রেতার সংখ্যা বেশি। তাই সময় গড়ানোর সঙ্গে হাটে পশুর দামও বাড়ছে।

শুক্রবার বিকেল থেকে পশুর হাটে তেমন গরু নেই। আবার কোথাও কোথাও অতিরিক্ত টাকায়ও মিলছে না পছন্দসই গরু। তাই কদর বেড়েছে ছাগলের। হাটে গরুর অপ্রতুলতা দেখা দেওয়ায় শেষ মুহূর্তে এখন ছাগলই ভরসা। 

শুক্রবার সকালে সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা গেছে, পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে ছোট-বড় সড়কে ছাগলের অনির্ধারিত হাট বসেছে। যেখানে হাট সেখানেই মানুষের ভিড়। ছাগলের সরবরাহের তুলনায় ক্রেতার সংখ্যা বেশি হওয়ার সুযোগে বিক্রেতারাও অন্যান্য সময়ের চেয়ে ছাগলভেদে সর্বনিম্ন দুই হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা বেশি দাম চাইছেন। গরু কিনতে না পেরে একাধিক ছাগল কিনে নিয়ে যাচ্ছেন অনেকে। 

এ বিষয়ে রাজধানীর শনির আখড়া এলাকার বাসিন্দা রবিউল বলেন, ‘গরু পাইনি। তাই শেষ মুহূর্তের ভরসা হিসেবে একটি খাসি কিনলাম।’

উত্তরার ৬ নম্বর সেক্টরের বাসিন্দা রিফাত রুমানা শর্মী বলেন, ‘সর্বশেষ একটি ছাগল কিনেছি। দাম একটু বেশি রেখেছে।’   

ছাগল বিক্রেতা আরিফুজ্জামান জামান জানান, রাজধানীতে গরু না থাকায় অনেকে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে গরুর পরিবর্তে ছাগল কিনছেন। 

এদিকে ক্রেতা নেই, বিক্রি নেই- এমন চিত্র ছিল গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত রাজধানীর প্রায় সব পশুর হাটের। সন্ধ্যার পর এক নিমিষেই পাল্টে যেতে থাকে চিত্র। পশুর হাটগুলোতে বাড়তে থাকে ক্রেতা। মধ্যরাতে হঠাৎ গরুশূন্য হয়ে পড়ে হাটগুলো।

আজ শুক্রবার সকাল থেকে বাজারগুলোতে ক্রেতা আছে কিন্তু গরু নেই। হঠাৎ এমন চিত্র দেখে বিস্মিত ক্রেতারা। এ হাট থেকে ওই হাটে ছোটাছুটি করে হতাশ হয়ে পড়েছেন অনেক ক্রেতা। গরু না পেয়ে অনেকের কোরবানি দেওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

আজ সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজধানীর কয়েকটি পশুর হাটে গিয়ে দেখা যায়,ক্রেতারা ঘুরছেন কিন্তু গরু নেই। ব্যাপারিরা বসে বসে আড্ডা দিচ্ছেন। কেউ কেউ নতুন করে আবার গরু বাজারে আনার চেষ্টা করছেন।