শ্রীপুরে দুই বোনকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২

শ্রীপুরে ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে দুই বোনকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করেছেন দুই যুবক। ওই সময় ঘরের ভেতর সাউন্ড বক্সে উচ্চশব্দে গান বাজাচ্ছিলেন ধর্ষকরা। দুই বোন চিৎকার করলেও টের পায়নি প্রতিবেশীরা। দুই ধর্ষকই এ সময় মোবাইল ফোনে এ দৃশ্য ভিডিও করে রাখেন। নির্যাতিতা দুজনই বিবাহিত।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর সকালে উপজেলার রাজাবাড়ী ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা কাউকে জানালে ধর্ষণদৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ (ফেসবুক) ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন ওই দুই যুবক। এতে ভয়ে দুই বোন কয়েক দিন ঘটনাটি কাউকে জানাননি। পরে নির্যাতিতা একজন গত শনিবার রাতে শ্রীপুর থানায় মামলা করেন। পুলিশ ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে ধর্ষণকারী দুই যুবককে গ্রেপ্তার করে। তাঁরা হলেন শ্রীপুরের রাজাবাড়ী ইউনিয়নের নোয়াগাঁও পূর্বপাড়া গ্রামের মো. নূরুর ছেলে মো. রাজ্জাক (৩৫) ও একই গ্রামের আকাব্বর আলীর ছেলে আজিজুল হক (২৫)।

স্বজনরা জানায়, তাঁদের বাবা মারা গেছেন কয়েক বছর আগে। ছোট বোনটি তাঁর মায়ের সঙ্গেই থাকেন।

নির্যাতনের শিকার ছোট বোন জানান, দীর্ঘদিন ধরেই তাঁকে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন রাজ্জাক ও আজিজুল। প্রায়ই তাঁকে অনৈতিক প্রস্তাব দিতেন তাঁরা। এতে তিনি গ্রামের প্রভাবশালীদের জানিয়ে বিচার চাইবেন বলে হুমকি দেওয়ায় ক্ষুব্ধ হন তাঁরা। উল্টো দুই যুবকই তাঁকে তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন।

মেয়েটি আরো জানান, কয়েক দিন আগে পাশের বাজার থেকে টাকা বাকি রেখে আসবাব কিনেছিলেন তিনি। পরে একটি এনজিও থেকে টাকা তুলে গত ৩০ সেপ্টেম্বর সকালে আসবাবের বাকি টাকা দেওয়ার জন্য তাঁর বড় বোনকে সঙ্গে নিয়ে বাজারে রওনা হন। বনের ভেতর সড়ক দিয়ে যাওয়ার পথে আগে থেকে ওত পেতে থাকা রাজ্জাক ও আজিজুল ধারালো অস্ত্র হাতে তাঁদের পথরোধ করেন। পরে তাঁরা গলায় অস্ত্র ধরে পাশে রাজ্জাকের বাড়িতে নিয়ে যান তাঁদের। সেখানে একটি ঘরে আটকে রেখে রাজ্জাক তাঁকে ও আজিজুল হক তাঁর বড় বোনকে একই বিছানায় ধর্ষণ করেন। তিনি জানান, ওই সময় ধর্ষণকারীরা ঘরের ভেতর সাউন্ড বক্সে উচ্চশব্দে গান বাজাচ্ছিলেন। এতে তাঁরা চিৎকার করলেও প্রতিবেশীরা টের পায়নি। ধর্ষণকারী দুজনই ধর্ষণদৃশ্য ভিডিও করে রাখেন।

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) তারিকুজ্জামান জানান, অভিযোগ পেয়ে তাত্ক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ধর্ষণকারী রাজ্জাক ও আজিজুল হককে গ্রেপ্তার করা হয়। এদিকে গতকাল দুপুরে নির্যাতিতা দুই বোনের শারীরিক পরীক্ষা গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শেষ হয়েছে।