শ্রীপুরে স্ত্রীকে ছুরি মেরে স্বামীর আত্মহত্যা


গাজীপুরের শ্রীপুরে স্ত্রীকে ছুরি মারার পর নিজের গলা কেটে আত্মহত্যা করেছেন এক যুবক।

শনিবার সকালে শ্রীপুর পৌর এলাকার দারগারচালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত স্ত্রী স্বপ্না আক্তারকে (২৫) ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিহত মোর্শেদ আলম (৩০) নরসিংদীর পলাশ থানার তারগাঁও গ্রামের সিরাজ মিয়া ওরফে শিরুর ছেলে। দারগারচালা এলাকায় মোর্শেদের নানা বাড়ি। আহত স্বপ্না আক্তার দারগারচালা এলাকার বাচ্চু মিয়ার মেয়ে।

মোর্শেদের খালাতো ভাই সাদি সাংবাদিকদের জানান, আট বছর আগে মোর্শেদ ও স্বপ্না ভালোবেসে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই তারা স্বপ্নাদের বাড়িতে বসবাস করতেন এবং তারা দুইজনে স্থানীয় পৃথক দুটি পোশাক করাখানায় চাকরি করতেন। তাদের ৬/৭ বছর বয়সি একটি ছেলে রয়েছে। পারিবারিক বিষয় নিয়ে বিভিন্ন সময় তাদের মধ্যে ঝগড়া হতো। শনিবার সকালে তারা দুইজনই কারখানার যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হন। কিছু দূর যাওয়ার পর উভয়ের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। এক পর্যায়ে মোর্শেদ ছুরি দিয়ে স্ত্রী ও নিজের গলায় আঘাত করেন। এ ঘটনা দেখে পথচারীরা ডাক-চিৎকার শুরু করলে স্বজনরা এসে মোর্শেদকে উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসকত মৃত ঘোষণা করে। গুরুতর আহত স্বপ্নাকে উদ্ধার করে প্রথম স্থানীয় একটি হাসপাতালে এবং সেখান থেকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জাবেদুল ইসলাম জানান, পারিবারিক দ্বন্দ্বে স্ত্রীকে ছুরি মেরে স্বামী আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।