সদরঘাটে ঘরমুখো যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড়


ঈদের আগ মুহূর্তে রাজধানী ছাড়তে অসংখ্য মানুষ ভিড় করেছে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে। এ সময় লঞ্চগুলোও সুযোগ পেয়ে বাড়তি যাত্রী বোঝাই করছে। দুর্ঘটনার আশঙ্কা মাথায় নিয়েই কানায় কানায় যাত্রী ভর্তি করে রওনা দিচ্ছে লঞ্চগুলো।

আজ রবিবার ঈদের আগের দিন এমন চিত্রই দেখা যায় সদরঘাটে। দক্ষিণাঞ্চলের কর্মজীবী মানুষ শেষ মুহূর্তে ত্যাগ করছে রাজধানী। এ কারণে কোথাও তিল ধারণের জায়গা নেই। টার্মিনাল, পন্টুন, লঞ্চের কেবিন, ডেক ও ছাদ কানায় কানায় ভরে গেছে মানুষে।

বিআইডব্লিউটিএ সূত্র জানিয়েছে, এ বছর ঈদ করতে সদরঘাট হয়ে ঘরে ফিরবেন প্রায় অর্ধকোটি মানুষ। এজন্য ৪৩টি রুটে যাত্রী পরিবহন করছে প্রায় ২১৫টি লঞ্চ।

আগামীকাল ঈদ। তাই অন্যদিনের তুলনায় ঘরমুখো যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড় শুরু হয়েছে রাত থেকেই। ৬টা থেকে ছাড়া শুরু করেছে লঞ্চগুলো।

যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপ সামলাতে সময়ের আগেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে কয়েকটি লঞ্চ। ঘাট সূত্রে জানা গেছে, ভোর থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন রুটে ছেড়ে গেছে ১২টি লঞ্চ। অপেক্ষায় আছে আরও ৩০টি।

সদরধাটে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নৌ-পুলিশের একাধিক দল নদীতে ও টার্মিনালে দায়িত্ব পালন করছে। রয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ, র‌্যাব, কোস্টগার্ড ও আনসার সদস্যরা।

এবার মাঝ নদী থেকে যাত্রীরা যেন লঞ্চে উঠতে না পারেন সেজন্য নৌ-পুলিশ তৎপর রয়েছে।