সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ ইউনাইটেড গ্রুপের


বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষে (বিআইডিএ) গত বছর স্থানীয় বা দেশীয় বিনিয়োগ প্রস্তাব এসেছে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮৫০ কোটি টাকার। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ প্রস্তাবটি ইউনাইটেড গ্রুপের। আর খাত হিসেবে এ সময়ে বিনিয়োগকারীদের সবচেয়ে বেশি আকৃষ্ট করেছে জ্বালানি খাত।

স্থানীয় ও বিদেশী বিনিয়োগের অন্যতম পোষক কর্তৃপক্ষ বিআইডিএ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীন সংস্থাটিতে ২০১৭ সালে মোট ১ হাজার ৬৬৬টি প্রকল্প প্রস্তাব গেছে। এর মধ্যে শীর্ষ ১০ প্রকল্পে প্রস্তাবিত বিনিয়োগ ৭ হাজার ৯০০ কোটি টাকা।

প্রকল্পগুলোর মধ্যে বিনিয়োগের পরিমাণে সবচেয়ে বড় ইউনাইটেড গ্রুপের ইউনাইটেড আনোয়ারা পাওয়ার লিমিটেড। প্রকল্পটিতে প্রস্তাবিত বিনিয়োগ ১ হাজার ৯২০ কোটি টাকা। চট্টগ্রামের আনোয়ারায় গত বছরের এপ্রিলে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয় ৩০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্রটির। ২০১৯ সালে প্রকল্পটির উৎপাদনে আসার কথা রয়েছে।

বিআইডিএতে গত বছর নিবন্ধিত দ্বিতীয় বৃহৎ বিনিয়োগ প্রস্তাবটিও ইউনাইটেড গ্রুপের। চট্টগ্রামের আনোয়ারাতেই লিকুইফায়েড পেট্রোলিয়াম গ্যাস (এলপিজি) বোতলজাত প্লান্টটিতে প্রতিষ্ঠানটির প্রস্তাবিত বিনিয়োগের পরিমাণ ৯৪৭ কোটি টাকা। তবে প্রকল্পটির বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া আপাতত স্থগিত আছে বলে জানিয়েছে ইউনাইটেড কর্তৃপক্ষ।

বিনিয়োগ প্রস্তাবনাগুলো সম্পর্কে ইউনাইটেড গ্রুপের চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ রাজা বণিক বার্তাকে বলেন, চট্টগ্রামের আনোয়ারাতেই আমাদের দুটি বিনিয়োগ প্রকল্প বাস্তবায়নের পরিকল্পনা ছিল। এর মধ্যে এলপিজি বোটলিং প্লান্টটির বাস্তবায়ন আপাতত স্থগিত আছে। কারণ প্রকল্পটির পার্শ্ববর্তী স্থানে সরকারি উদ্যোগে এলএনজি প্রকল্প স্থাপনের কথা রয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে সেখানে এলপিজি বোটলিং প্লান্ট স্থাপনের আর কোনো সুযোগ থাকবে না। বিদ্যুৎকেন্দ্রটি বাস্তবায়নের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। আশা করছি, ২০১৯ সালের প্রথম ভাগেই উৎপাদনে আসবে বিদ্যুৎকেন্দ্রটি।

২০১৭ সালে খাতভিত্তিক বিনিয়োগ প্রস্তাব পর্যালোচনায় দেখা যায়, বিনিয়োগের পরিমাণে শীর্ষ ১০ প্রকল্পের পাঁচটিই জ্বালানি খাতের। এর মধ্যে আবার দুটিই এলপিজি বোতলজাতকরণ প্রকল্প। জ্বালানি খাতের বাকি তিন প্রকল্পের মধ্যে দুটি বিদ্যুৎকেন্দ্র ও একটি অপরিশোধিত পেট্রোলিয়াম এবং প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন সংক্রান্ত।

বিনিয়োগের পরিমাণ বিবেচনায় তৃতীয় বৃহৎ প্রকল্পটিও জ্বালানি খাতের। ১১৬ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎ প্রকল্পটির নাম আনলিমা এনার্জি লিমিটেড। চট্টগ্রামের শিকলবাহায় প্রকল্পটিতে বিনিয়োগ প্রস্তাবনা ৮৯১ কোটি টাকা। ২০১৯ সালের শুরুতেই কেন্দ্রটি থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরুর কথা জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

আনলিমা গ্রুপের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হক এ প্রসঙ্গে বলেন, আমাদের বিদ্যুৎ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ দ্রুতই এগিয়ে যাচ্ছে। নির্মাণাধীন এ প্রকল্পটির ৩০ শতাংশ কাজ এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। আশা করছি, ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসেই বিদ্যুৎ উৎপাদনের কাজ শুরু হবে। বিদ্যুৎকেন্দ্রটির সক্ষমতা সম্প্রসারণের পরিকল্পনাও আছে আমাদের।