সহজ রাইডস: সহজে ও নিরাপদে গন্তব্যে


প্রায় পৌনে ২ কোটি মানুষের বাস রাজধানী ঢাকায়। এখানে কেউ চলে গাড়িতে, কেউ রিকশায়, কেউ সিএনজিতে, কেউ মোটরসাইকেলে। এই শহরে সবার মধ্যেই একটি বিষয় কাজ করে, তা হলো নিরাপদে ও দ্রুত সময়ে গন্তব্যে পৌঁছানো। কিন্তু সবাই কি সময়ে পৌছাতে পারে?

দ্রুত সময়ে গন্তব্যে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে বিপুল সংখ্যক মানুষ মোটরসাইকেল বেছে নেয়। কিন্তু মোটরসাইকেল কেনা সবার পক্ষে সম্ভব না এবং মোটরসাইকেল সবাই চালাতেও পারে না। তাই বর্তমানে ঢাকার মানুষদের কাছে রাইড শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম বেশ জনপ্রিয়। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এ সেবা প্রদানের কাজ করছে। এমনই একটি প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে সহজ রাইডস।

মোটরসাইকেল করে গন্তব্যে যাওয়ার ক্ষেত্রে সহজ রাইডসের মোবাইল অ্যাপটি ব্যবহার করছেন প্রায় ১০ লাখেরও বেশি ব্যবহারকারী। সহজ রাইডসের অ্যাপটি গুগল প্লেস্টোর-এ বেশি জনপ্রিয় অ্যাপ যার রেটিং ৪.১। এটি খুব অল্প স্পেস নেয়। তাই, খুব দ্রুত ডাউনলোড করা যায়। সহজ রাইডস অ্যাপটি স্মার্টফোনের ব্যাটারি চার্জ দ্রুত শেষ করে না এবং ইন্টারনেট ডাটা ব্যয় অল্প হয়। অ্যাপটির রেসপন্স টাইম বেশ দ্রুত। তাই, যেকোনো কিছুই করা যায় বেশ তাড়াতাড়ি। এই অ্যাপে একজন যাত্রী এক মিনিটেরও কম সময়ে রাইড রিকুয়েস্ট করতে পারে। রাইড শেষ করার পর পেমেন্ট করার জন্য বিকাশের সুবিধা রয়েছে। অ্যাপটির আরেকটি বিশেষত্ব হলো, এই অ্যাপের মাধ্যমে জাতীয় জরুরি সেবা– ৯৯৯ এ কল করা যায়।

* সহজ রাইডস অ্যাপটি গুগল প্লে স্টোর (goo.gl/BcC8tv) এবং অ্যাপলের অ্যাপস্টোর (goo.gl/T7MwS1) থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে।

* অ্যাপটি ইনস্টলের পর ব্যবহারকারীকে তার নিজের নাম, মোবাইল নম্বর, ই-মেইল আইডি ও সদ্য তোলা ছবি প্রদান করে নিবন্ধন করতে হবে। বাইকার ও রাইডারের নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করতেই প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করা বাধ্যতামূলক।

* অ্যাপের সেটিং অপশন থেকে ব্যবহারকারী বাংলা ও ইংরেজি ভাষা থেকে যেকোনো একটি নির্বাচন করতে পারবেন। ব্যবহারকারী বাসা ও অফিসের ঠিকানা সংরক্ষণের সুযোগ রয়েছে এতে।

* অ্যাপটিতে প্রবেশ করে ব্যবহারকারী তার গন্তব্য উল্লেখ করলে আনুমানিক ভাড়া প্রদর্শন করা হবে। ব্যবহারকারী যদি রাজি থাকেন তবে নিশ্চিৎ করলেই অ্যাপ স্বয়ংক্রিয়ভাবে আশেপাশে থাকা রাইডার খুঁজতে থাকবে। অতঃপর রাইডার পেয়ে গেলে তার বিস্তারিত তথ্য দেখে নিয়ে ব্যবহারকারী তার সঙ্গে যোগাযোগ করে রাইডটি নিতে পারবেন।