সিরাজগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা


সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে পারিবারিক কলহের জেরে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার বিকেলে পাষণ্ড স্বামী জাহাঙ্গীর তার স্ত্রী সোনিয়ার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ভোরে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে সোনিয়া মারা যায়। গৃহবধূ সোনিয়া (২২) এনায়েতপুর থানার খামারগ্রাম গ্রামের তাঁত শ্রমিক জাহাঙ্গীরের স্ত্রী ও রুপনাই ছোনভিটা গ্রামের দিনমজুর আব্দুল খালেকের মেয়ে।

এনায়েতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম বিশ্বাস জানান, ২০১৪ সালে জাহাঙ্গীর প্রেম করে সোনিয়াকে বিয়ে করে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই পারিবারিক কলহের কারণে জাহাঙ্গীর প্রায়ই স্ত্রী সোনিয়াকে মারধর করত। এ অবস্থায় মঙ্গলবার দুপুরের দিকে জাহাঙ্গীর বাড়ির পাশে একটি চেপা গলিতে নিয়ে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। পরে সোনিয়ার চিৎকারে স্থানীয়রা তাকে উদ্বারের খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

রাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সোনিয়াকে ঢাকায় রেফার্ড করেন। কিন্তু সেখান থেকে সোনিয়া সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেয়ার পর ভোরের দিকে সে মারা যায়। এ ঘটনায় সোনিয়ার মা নুরুন্নার বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। পলাতক জাহাঙ্গীরকে আটকের চেষ্টা চলছে। তিনি আরো জানান, লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের লোকের কাছে হস্তান্তর করা হবে।