সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ: প্রধানমন্ত্রী

আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণবভন থেকে রাজশাহীর ৮ জেলার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের শুরুতে বক্তব্য দেওয়ার সময় এ কথা জানান তিনি।

তিনি বলেন, স্কুল-কলেজ এখনই খোলা হবে না। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অন্তত সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। কখন খুলবো এখনো সিদ্ধান্ত নেইনি। যদি তখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস অব্যাহত থাকে। যখন থামবে তখনই খুলবো। বেশি জনসমাগম যাতে না হয় সেজন্য এ ব্যবস্থা।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী ইমাম-মুয়াজ্জিনসহ ধর্মীয় আলেমদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মসজিদে তারা সীমিত আকারে তারাবির নামাজ আদায় করবেন। মসজিদে ১০-১২ জন থাকবেন। ঘরে বসে সবাই নামাজ পড়তে পারেন। কারণ আমরা ঘরে পড়ে যাচ্ছি। ঘরে বসে আল্লাহর কাছে কায়মনোবাক্যে দোয়া করেন। এই করোনার হাত থেকে যেন বাংলাদেশসহ বিশ্ব মুক্তি পায়। আর যেন মানুষের জীবন ক্ষয় না হয়।

এই দুঃসময় কাটিয়ে ওঠার প্রত্যাশা ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি আশা করছি এ পরিস্থিতি আমরা কাটিয়ে উঠবো, এ অবস্থা থাকবে না। আমাদের কলকারখানা আবার চালু হবে, অর্থনীতি সচল হবে। সে বিষয়ে আমরা বিশেষভাবে কাজ করে যাবো।

এসময় প্রধানমন্ত্রী কৃষির জন্য ৫ হাজার কোটি টাকার আলাদা তহবিলের কথা উল্লেখ করে বলেন, কৃষির জন্য আমরা বিশেষ প্রণোদনা দিয়েছি, যাতে কৃষিকাজ অব্যাহত থাকে। এর মধ্যে ক্ষুদ্র-মাঝারি কৃষিতে যারা সরাসরি কাজ করে বিশেষ করে পোল্ট্রি, মৎস্য, ডেইরি ফার্মসহ প্রত্যেকে সহযোগিতা পাবে। সবাই এখান থেকে অর্থ নিয়ে কাজ করতে পারবে। এখানে আমরা প্রায় ৯ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ভর্তূকি দিচ্ছি।

বোরো ধান ওঠার সঙ্গে সঙ্গে সংগ্রহ করা হবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ইতোমধ্যে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি ৮ লাখ মেট্রিক টন ধান, ১০ লাখ মে. টন চাল, ২ লাখ ২০ হাজার মে. টন আতপ এবং ৮০ হাজার মে. টন গমসহ ২১ মেস্ট্রিক টন সংগ্রহ করার পরিকল্পনা নিয়েছি। ইনশাল্লাহ আমাদের কোনো খাদ্য সংকট হবে না। যদি আমরা সবাই একসঙ্গে কাজ করি।

ভিডিও কনফারেন্সে রাজশাহী বিভাগের আট জেলার মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি এবং সংশ্লিষ্ট সবাই যুক্ত রয়েছেন। জেলাগুলো হচ্ছে, বগুড়া, চাপাইনবাবগঞ্জ, জয়পুরহাট, নওগাঁ, নাটোর, পাবনা, রাজশাহী এবং সিরাজগঞ্জ।

এরআগে প্রধানমন্ত্রী করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে চার দফা পৃথক ভিডিও কনফারেন্সে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট, বরিশাল এবং ময়মনসিংহ বিভাগের ৪৮টি জেলার সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী জনগণকে স্বাস্থ্যবিধিসমূহ মেনে চলার আহ্বান জানানোর পাশাপাশি সংকট উত্তরণে বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজেরও ঘোষণা দেন।