হবিগঞ্জে কলেজছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় দুপক্ষের বিরোধের জের ধরে তানভির মিয়া (১৯) নামের এক কলেজছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার বড়ইউড়ি গ্রামে গতকাল শনিবার রাতে ওই কলেজছাত্রের বাড়ির পাশের একটি পুকুর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে। এরই মধ্যে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে।

নিহত তানভির মিয়া হবিগঞ্জ সরকারি বৃন্দাবন কলেজের ছাত্র ছিলেন।

স্বজন, এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বড়ইউড়ি গ্রামের মমতাজ মিয়ার সঙ্গে জমিজমা নিয়ে একই গ্রামের মোহাম্মদ আলী গংদের বিরোধ চলছিল। এ বিরোধের জের ধরে মোহাম্মদ আলী বিভিন্ন সময়ে মমতাজ মিয়ার ওপর নির্যাতন চালাতেন। এরই জের ধরে কিছুদিন আগে মমতাজ মিয়াকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যান মোহাম্মদ আলী ও তাঁর লোকজন। পরে তাঁকে আটকে রেখে মারপিট এবং ভিডিও ধারণ করা হয়। সেই ভিডিও মমতাজ মিয়ার বিদেশে থাকা স্বজনদের কাছে পাঠান মোহাম্মদ আলী।

এর জের ধরে গতকাল শনিবার সকালে মোহাম্মদ আলী ও মমতাজ মিয়ার লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরস্থিতি শান্ত করে। তবে গতকাল সন্ধ্যার দিকে মমতাজ মিয়ার ছেলে তানভির মিয়াকে বাড়ির পাশের পুকুর পাড়ে একা পেয়ে কুপিয়ে হত্যা করে মোহাম্মদ আলী ও তাঁর লোকজন।

খবর পেয়ে বানিয়াচং থানা পুলিশ গতকাল দিবাগত রাতে তানভিরের লাশ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বানিয়াচং সার্কেল) শেখ মোহাম্মদ সেলিম জানান, গতকাল সকালে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। পরে এর জের ধরে সন্ধ্যায় তানভিরকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে।