হুয়াওয়ে ফোনে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারের লাইসেন্স বাতিল

হুয়াওয়ের মোবাইল ফোনে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারের লাইসেন্স বাতিল করেছে গুগল৷ এর ফলে চীনা প্রতিষ্ঠানটিকে অ্যান্ড্রয়েডের সেবা নিতে ওপেন সোর্স বা উন্মুক্ত সফটওয়্যারের উপর নির্ভর করতে হবে৷ রোববার গুগল এক ঘোষণায় হুয়াওয়ের অ্যান্ড্রয়েড লাইসেন্স বাতিলের এই ঘোষণা দিয়েছে৷

গত সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একটি নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে হুয়াওয়েকে যুক্তরাষ্ট্রে কালো তালিকাভুক্ত করেছেন৷ জাতীয় নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের যন্ত্রপাতি ব্যবহার থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে এতে৷ সেই সঙ্গে চীনের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি যুক্তরাষ্ট্রে এখন থেকে আর কোনো ব্যবসায়িক কার্যক্রম চালাতে পারবে না৷ এর প্রেক্ষিতেই গুগল হুয়াওয়ের সাথে তাদের সফটওয়্যার লাইসেন্স বাতিলের ঘোষণা দিলো৷ সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে গুগলের একজন মুখপাত্রও নিশ্চিত করেছেন৷

কী প্রভাব পড়বে
বর্তমানে বিক্রির দিক থেকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ হ্যান্ডসেট সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে৷ দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্যামসাংয়ের পরেই তাদের অবস্থান৷ মোবাইলের পাশাপাশি টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক প্রযুক্তির বাজারেও হয়াওয়ের অবস্থান শক্তিশালী৷ তবে প্রতিষ্ঠানটি তাদের বিভিন্ন ডিভাইসে চীনের গোয়েন্দা সংস্থার কাছে তথ্য সরবরাহের জন্য গোপন সফটওয়্যার ব্যবহার করছে বলে দাবি করে আসছে ট্রাম্প সরকার, যা বরাবরই অস্বীকার করেছে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷

যুক্তরাষ্ট্রের এই চাপে হুয়াওয়ের বড় ধরনের কোনো ক্ষতি হবে না বলে মনে করেন এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী রেন ঝেংফেই৷ এজন্য আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি৷ জাপানের বাণিজ্য বিষয়ক দৈনিক দ্য নিক্কেইকে তিনি বলেন, ‘‘আমরা এমন কিছু করিনি, যার মাধ্যমে আইনের বরখেলাপ হয়৷ এটা প্রত্যাশিত যে, এর ফলে হুয়াওয়ের প্রবৃদ্ধির গতি কিছুটা ধীর হয়ে যাবে৷ কিন্তু সেটা খুবই সামান্য৷”

চীন ও এশিয়ার বাইরে গত কয়েক বছরে হয়াওয়ে ইউরোপের স্মার্টফোনের বাজার ধরার চেষ্টা করছে৷ বিভিন্ন ফ্ল্যাগশিপ ফোন দিয়ে ধীরে ধীরে তারা ভালো একটি অবস্থানও করে নিচ্ছিলো৷ অ্যান্ড্রয়েডের লাইসেন্স বাতিল হওয়ার কারণে সেখানে তার বাজার বাধাগ্রস্থ হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷