১২০ মিলিয়ন ইউরো মূল্যের বিস্ময়বালক!


পর্তুগিজ লিগের মূল পর্বে মাত্র ১০০০ মিনিটের মতো খেলার অভিজ্ঞতা হয়েছে তাঁর, বয়স কেবল ১৯। অথচ এরই মধ্যে তাঁর উপর নজর পড়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, রিয়াল মাদ্রিদ, পিএসজির মতো ইউরোপিয়ান জায়ান্ট ক্লাবের। ১৯ বছর বয়সী এ ফুটবলারকে বিক্রির জন্য তাঁর ক্লাব বেনফিকাও ধার্য করেছে অবিশ্বাস্য মূল্য। অর্থে অঙ্কে ১২০ মিলিয়ন ইউরো! বলা হচ্ছে জোয়াও ফেলিক্স নামের বিস্ময়বালকের কথা।

কেউ কেউ তাঁকে বলছে নতুন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সিনিয়রদের লিগে ক্যারিয়ারের প্রথম ১০০০ মিনিটে রোনালদোও অবশ্য জোয়াও ফেলিক্সের মতো দুর্দান্ত শুরু পাননি। এই সময়ে মাঠে রোনালদোর করা তিন গোল আর একটি সহায়তার বিপরীতে ফেলিক্সের গোল হয়ে গেছে আটটি, পাশাপাশি সহায়তা করেছেন তিনটি গোল করতে। একই সময়ে ১৩ গোল করে আর আটটি গোলে সহায়তা করে শুধু একজনই তাঁর উপরে আছেন। বার্সেলোনার ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি।

ক্যারিয়ারের প্রথম হাজার মিনিটের পারফরম্যান্সে পর্তুগালের এই বিস্ময়বালকের পেছনে পড়ে গেছেন নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপ্পের মতো তারকারা। খবর বেরিয়েছে, ইউরোপের সেরা ক্লাবগুলো নাকি অনেকদিন ধরে ফেলিক্সের মাঠের পারফরম্যান্সকে অনুসরণ করে চলেছে। সুযোগ পেয়ে বিশাল অঙ্কের দামও হাঁকছে তাঁর ক্লাব বেনফিকা। তবে পর্তুগালের এই নতুন সেনসেশন খেলতে চান জুভেন্টাসের হয়ে।

নিজের পরবর্তী গন্তব্যের বিষয়ে ফেলিক্স বলেছেন, তিনি খেলতে চান স্বদেশি রোনালদোর সতীর্থ হয়ে। সংবাদমাধ্যম ‘তুত্তোস্পোর্ট’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘রোনালদো নিঃসন্দেহে সবার সেরা। সে সবার জন্য অনুকরণীয় এক খেলোয়াড়, বিশ্বতারকা। তাঁর মতো বিশাল মাপের একজনের পাশে খেলতে পারলে নিজেকে ভালোভাবে প্রস্তুত করে ভবিষ্যতে আরো দারুণ কিছুর জন্য তৈরি করা যাবে।’