৩২৪ রানের র্টাগেট ভারতের সামনে

জমে উঠেছে ব্রিসবেন টেস্ট। অথচ ম্যাচটি মাঠে গড়ানো নিয়েই শঙ্কা ছিল। করোনার কড়াকড়ি নিয়ম নিয়ে অস্ট্রেলীয় প্রশাসনের সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়েছিল ভারতের ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

এ ছাড়া কুইন্সল্যান্ড রাজ্যে লকডাউনের বিষয়টি তো ছিলই।

এতসব শঙ্কা কাটিয়ে চতুর্থ দিন পার করছেন বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির শেষ টেস্ট। চতুর্থ দিনে ইংল্যান্ডের দেওয়া ৩২৪ রানের লিড তাড়া করতে ব্যাটিংয়ে নামে ভারত।

দিনশেষে কোনো উইকেট না হারিয়ে স্কোর বোর্ডে ৪ রান যোগ করেছেন দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শুভমান গিল।

আজ ভারতের হয়ে সবচেয়ে বেশি সফল দুই পেসার মোহাম্মদ সিরাজ ও শারদুল ঠাকুর। দুজনে মিলে শিকার করেছেন ৯ উইকেট। অস্ট্রেলিয়াকে ২৯৪ রানেই গুটিয়ে দিয়েছেন তারা।

এর আগে শনিবারও অস্ট্রেলিয়াকে বড় লিড নিতে দেননি ভারতের বোলাররা। অভিষেক টেস্টে চমৎকার নৈপুণ্য দেখিয়েছেন পেসার টি নটরাজন ও অফস্পিনিং অলরাউন্ডার ওয়াশিংটন সুন্দর। পেসার শারদুলও কম যাননি। তিনজনের প্রত্যেকে তিনটি করে উইকেট নেন৷

ভারতীয় বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৩৬৯ রানে থামে অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস। জবাবে সেই বোলারদের ব্যাটিং পারফরম্যান্সে ঘুরে দাঁড়ান সফরকারীরা।

সুন্দর-শারদুলের অনন্য জুটিতে ভর করে ৩৩৬ রানে থামে ভারতের ইনিংস।

অর্থাৎ ৩৩ রানের লিড নিয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেন স্বাগতিকরা।

রোববার শেষ বিকালে ব্যাট করতে নেমে ৩৩ রানের লিডের সঙ্গে কোনো উইকেট না হারিয়ে আরও ২১ রান যোগ করে অস্ট্রেলিয়া।

আজ সোমবার দুই অসি ওপেনার মার্কাস হ্যারিস ও ডেভিড ওয়ার্নার যথাক্রমে ২০ ও ১ রান নিয়ে খেলা শুরু করেন। ৮২ বলে ৩৮ রান করে শারদুলের বলে ফেরেন হ্যারিস। মাত্র ২ রানের জন্য হাফসেঞ্চুরি বঞ্চিত হন ওয়ার্নার। তাকে ফেরান সেই অভিষিক্ত স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর। প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি হাঁকানো লাবুশানে দ্বিতীয় ইনিংসে ২৫ রানের বেশি করতে পারেননি।

তবে স্টিভ স্মিথ ঠিকই হাফসেঞ্চুরি (৫৫) তুলে নেন। মোহাম্মদ সিরাজের জোড়া শিকারে পরিণত হন এ দুই অসি তারকা ব্যাটসম্যান। পরের উইকেটটিও দ্রুতই তুলে নেন সিরাজ। ম্যাথিউ ওয়েডকে শূন্যরানে সাজঘরের পথ দেখান হায়দরাবাদের এই পেসার।

স্মিথের ৫৫ রানই দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান। ওয়েডের ফেরার পর জোড়া শিকার করেন শারদুল। ক্যামেরুন গ্রিন (৩৭) ও টিম পেইনকে (২৭) ফেরান তিনি।

এ সময় চমৎকার এক ইনিংস খেলেন বোলার প্যাট কামিন্স। ৫৫ বলে ২৮ রান করে রানের চাকায় গতি সঞ্চার করেন। তবে বাকি তিন টেলএন্ডার ব্যাটসম্যান তাকে ভালোভাবে সঙ্গ দিতে পারেননি।

মিচেল স্টার্ক ১, নাথান লায়ন ১৩ ও হ্যাজেলহুড ৯ রানে আউট হয়ে গেলে ২৮ রানেই অপরাজিত থাকেন কামিন্স।

৭৫.৫ ওভার খেলে দ্বিতীয় ইনিংসে অস্টেলিয়ার সংগ্রহ ২৯৪ রান। আগামীকাল জয় পেতে ভারতের প্রয়োজন ৩২৪ রান আর অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ১০ উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের হয়ে সবচেয়ে সফল মোহাম্মদ সিরাজ। মাত্র ৭৩ রান দিয়ে ৫ উইকেট শিকার করেছেন তিনি। শারদুল ঠাকুরও কম যাননি। ৬১ রান দিয়ে তিনি নিয়েছেন ৪ উইকেট।