৪ এমওইউ ও ১ এসওপি সই করল বাংলাদেশ-ভুটান


বিভিন্ন সেক্টরে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়াতে চারটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) এবং একটি স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) সই করেছে বাংলাদেশ ও ভুটান।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ‘প্রধানমন্ত্রীর তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে আজ শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিংয়ের উপস্থিতিতে এসব এমওইউ এবং এসওপি সই হয়। এর ফলে দুই দেশের মধ্যে কার্গো ট্র্যান্সপোর্টেশন, স্বাস্থ্য, কৃষি, পর্যটন খাতে সহযোগিতা বাড়বে এবং প্রশিক্ষণ ও সক্ষমতা বাড়াতে দুই দেশের জনপ্রশাসন ট্রেনিং সেন্টার প্রশিক্ষক বিনিময় করবে।

আরো জানা গেছে, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এবং কার্গো পরিবহন বিষয়ে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরে (এসওপি) বাংলাদেশের পক্ষে সই করেন নৌ পরিবহন সচিব মো. আবদুস সামাদ এবং ভুটানের পক্ষে সই করেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বাণিজ্য বিভাগের পরিচালক সোনম তেনজিন।

এছাড়া স্বাস্থ্য খাতে সহযোগিতা বিষয়ে একটি সমঝোতা স্বারকে বাংলাদেশের পক্ষে সই করেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম এবং ভুটানের স্বাস্থ্য সচিব ডা. উজেন দফু।

বাংলাদেশ অ্যাগ্রিকালচার রিসার্স কাউন্সিলের এবং ভুটানের কৃষি ও বন মন্ত্রণালয় পারস্পরিক সহযোগিতা বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের পক্ষে সই করেন বাংলাদেশ অ্যাগ্রিকালচার রিসার্স কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. কবির ইকরামুল হক এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্রদূত সোনম তোবদেন রাবগি।

জনপ্রশাসনে পারস্পরিক সহযোগিতা বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের পক্ষে সই করেন বাংলাদেশ জনপ্রশাসন প্রশিক্ষণ সেন্টারের রেকটর এম আসলাম আলম এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্রদূত সোনম তোবদেন রাবগি।

পর্যটন সহযোগিতা বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের পক্ষে সেই করেন পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান আখতারুজ জামান খান কবির এবং ভুটানের পক্ষে সই করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্রদূত সোনম তোবদেন রাবগি।

এর আগে একান্ত ও দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী।