ট্রাম্প নৈতিকভাবে প্রেসিডেন্ট পদের যোগ্য নন : কোমি


ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) সাবেক প্রধান জেমস কোমি বলেছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদের জন্য ‘নৈতিকভাবে উপযুক্ত নন’। তিনি একের পর এক প্রতিষ্ঠানিক ও সাংস্কৃতিক মূল্যবোধের ‘অসামান্য ক্ষতি’ করে চলছেন।

জেমস কোমিকে গত বছর মে মাসে এফবিআইর পরিচালক পদ থেকে বহিষ্কার করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে তদন্ত করছিলেন কোমি।

যদিও রাশিয়া এ ধরনের হস্তক্ষেপের কথা সব সময়ই অস্বীকার করে আসছে, আর ট্রাম্পও এর সঙ্গে নিজের সম্পৃক্ততা নেই বলে দাবি করছেন।

এরপর এই প্রথম কোনো গণমাধ্যমের মুখোমুখি হলেন কোমি। রোববার রাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম এবিসি নিউজের সাক্ষাৎকারভিত্তিক জনপ্রিয় ২০/২০ অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে আসেন সাবেক এই এফবিআইপ্রধান।

অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক জর্জ স্টেফানিওপোলস এফবিআইর সাবেক পরিচালককে প্রশ্ন করেন, ‘আপনি কি মনে করেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট পদের জন্য উপযুক্ত নন?’

জবাবে জেমস কোমি বলেন, ‘হ্যাঁ, এটা নিয়ে আমি অনেকের আলোচনাই এখন শুনতে পাই।… ট্রাম্প এমন একজন ব্যক্তি, যে কি না নারীদের মাংসের টুকরোর সঙ্গে তুলনা করেন। যে কি না ছোট বা বড় সব বিষয় নিয়েই অনবরত মিথ্যা বলে চলেছেন এবং আমেরিকানদের সেটা বিশ্বাস করার জন্য বলছেন। এ ধরনের লোক নৈতিক দিক থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদের জন্য যোগ্য নন।’

‘আমি মনে করি না, চিকিৎসাবিদ্যার দিক থেকে ট্রাম্প অযোগ্য। আমি মনে করি, নৈতিক দিক থেকে তিনি প্রেসিডেন্ট পদের যোগ্য নন,’ যোগ করেন কোমি।

এফবিআইর সাবেক পরিচালক আরো বলেন, ‘আমাদের প্রেসিডেন্ট হবেন এমন একজন, যিনি সারা দেশের মূলধারার মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হবেন। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে নৈতিকতা। প্রেসিডেন্ট এটি রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছেন।’

জেমস কোমির এই সাক্ষাৎকার প্রচারের পর পরই ডোনাল্ড ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টির জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, জেমস কোমি তাঁর বইয়ের প্রচার সামনে রেখে এসব বকছেন। আর ট্রাম্প তাঁর টুইটে বলেন, কোমি সব সময়ই হতাশ, (তিনি স্মার্ট না), ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে এফবিআই পরিচালকের জায়গায় স্থান হবে।