ঝড়ে ভেঙে পড়লো যুক্তরাষ্ট্রের ‘টানেল ট্রি’

1484046045
যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় হাজার বছরেরও বেশি সময় ধরে সগর্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছিল গাছটি। নাম পাইওনিয়ার কেবিন ট্রি। তবে টানেল ট্রি নামেই বেশি পরিচিত ছিলো গাছটি।

আঠারো শতকের শেষ দিকে সুবিশাল এই প্রাচীন গাছটির গুঁড়িতে সুড়ঙ্গ কেটে গাড়ি চলাচলের পথ করা হয়। তবে কালের স্বাক্ষী সিকোইয়া গোত্রের গাছটি এখন আর নেই। গত কয়েকদিনের ঝড় বৃষ্টিতে ভেঙে পড়েছে ঐতিহাসিক গাছটি।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার কালাভেরাস কাউন্টির কালাভেরাস বিগ ট্রিস স্টেট পার্কে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকা গাছটি গত সপ্তাহান্তে ভেঙে পড়েছে বলে জানান পার্ক কর্মকর্তারা।

আঠারো শতকের আশির দশকে সিকোইয়া গাছটির গুঁড়িতে সুড়ঙ্গ কেটে বিশাল এক ফোকর তৈরি করা হয়। কালাভেরাস বিগ ট্রিস অ্যাসোসিয়েশনের ফেসবুক পেজেও মাটিতে পড়া গাছটির ছবি প্রকাশিত হয়েছে।

গাছের সুড়ঙ্গপথটি ২ দশমিক ৪ কিলোমিটার লম্বা। যুক্তরাষ্ট্রের বন বিভাগ বলছে, কেবল পর্যটকেরাই গাছের ওই সুড়ঙ্গপথ দিয়ে পার হতেন।
বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, ক্যালিফোর্নিয়ার মধ্য ও উত্তরাঞ্চলে কয়েক দিন ধরে চলা ঝড় বৃষ্টির কাছে আত্মসমর্পণ করে ভেঙে পড়েছে গাছটি।

সাক্রামেনটোর দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত পার্কের স্বেচ্ছাসেবী জিম অ্যালডে বলেন, প্রবল ঝড় ও ভারী বর্ষণে টিকে থাকতে না পেরে স্থানীয় সময় রবিবার বেলা দুইটার দিকে গাছটি পড়ে যায়।

অ্যালডে বলেন, পার্কটি পানিতে ডুবে গিয়েছিল। মাটিতে আছড়ে পড়া গাছটি দেখে মনে হচ্ছিল, কোনো পুকুর, হ্রদ বা নদীতে পড়ে আছে।

গত সোমবার পর্যন্ত গাছটির প্রকৃত বয়স বোঝা যায়নি। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল পার্ক সার্ভিস বলছে, জায়ান্ট সিকোইয়া গাছগুলো তিন হাজারেরও বেশি বছর বাঁচে। এটি বিশ্বের দীর্ঘজীবী গাছগুলোর একটি ছিল। নিউইয়র্ক টাইমস

Facebook

Get the Facebook Likebox Slider Pro for WordPress